গ্রিনহাউস গ্যাসে মারাত্মক ঝুঁকিতে বৈশ্বিক খাদ্য উৎপাদন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:০৪ পিএম, ১৭ মে ২০২১

বর্তমানে যে হারে গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ চলছে, এই ধারা অব্যাহত থাকলে চলতি শতাব্দীর শেষ নাগাদ বিশ্বের খাদ্য উৎপাদন অঞ্চলগুলোর এক-তৃতীয়াংশ মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়বে। এর প্রভাবে বৈশ্বিক খাদ্য উৎপাদন ব্যাপকভাবে কমে যেতে পারে। সম্প্রতি ফিনল্যান্ডের আলতো ইউনিভার্সিটির এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

গবেষকরা বলেছেন, বর্তমানে শস্য উৎপাদনের জন্য বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চলগুলোর ৯৫ শতাংশকে ‘জলবায়ু নিরাপদ অঞ্চল’ হিসেবে ধরা হয়। কিন্তু গ্রিনহাউস গ্যাসের প্রভাবে বৈশ্বিক তাপমাত্রা যদি ৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বেড়ে যায়, তাহলে এসব অঞ্চলের অনেক জায়গায় বৃষ্টিপাতের ধরনে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটবে। ফলে সেখানে খাদ্যশস্য উৎপাদন মারাত্মকভাবে কমে আসবে।

jagonews24

গবেষকরা জানিয়েছেন, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং আফ্রিকার সুদানো-সাহেলিয়ান অঞ্চল।

গবেষণা প্রতিবেদনের প্রধান লেখক ও আলতো ইউনিভার্সিটির বৈশ্বিক খাদ্য ও পানি বিষয়ক সহযোগী অধ্যাপক মাত্তি কুম্মু বলেন, জলবায়ু নিরাপদ অঞ্চল ব্যাপকভাবে সংকুচিত হয়ে আসার আভাস আমাদের জন্য মারাত্মক উদ্বেগের। এর কারণে বিশ্বের এক-তৃতীয়াংশ খাদ্য উৎপাদন ঝুঁকিতে পড়বে।

তিনি বলেন, পশুপালন ও খাদ্যশস্য উৎপাদনে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির মারাত্মক প্রভাব পড়বে। অনেক এলাকায় ভয়াবহ আকারে পানিস্বল্পতা দেখা দিতে পারে। উচ্চমাত্রায় কার্বন নিঃসরণের কারণে চলতি শতাব্দীর শেষ নাগাদ দেখা দিতে পারে তীব্র খরা। এর ফলে বিশ্বের ৪০ লাখ বর্গ কিলোমিটারের বেশি জায়গা মরুভূমিতে পরিণত হতে পারে।

jagonews24

আলতো ইউনিভার্সিটির ওই গবেষণায় দেখা গেছে, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাদ্যশস্যগুলোর মধ্যে ২৭টি এবং সাত ধরনের গবাদিপশুর ওপর জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব হবে ধ্বংসাত্মক।

অবশ্য কিছুটা আশার আলোও দেখিয়েছেন গবেষকরা। তারা বলেছেন, যদি গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ কমানো যায় এবং প্যারিস জলবায়ু চুক্তির লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে রাখা যায়, তাহলে বৈশ্বিক খাদ্য উৎপাদন অঞ্চলের মাত্র ৫ থেকে ৮ শতাংশ ঝুঁকিতে পড়বে। অর্থাৎ বৈশ্বিক উষ্ণায়ন যত কমানো যাবে, মানবজাতির জন্য তা ততটাই মঙ্গলজনক হবে।

কেএএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]