ইসরায়েলে অস্ত্র বিক্রি বাতিলের জন্য বাইডেনকে মুসলিমদের আহ্বান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:০৩ পিএম, ১৯ মে ২০২১

ইসরায়েলের কাছে অস্ত্র বিক্রি বাতিলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আমেরিকান মুসলিমস ফর প্যালেস্টাইন নামে মুসলিম বিচারকদের সংস্থা দ্য কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশন্স (কেয়ার)।

মঙ্গলবার সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক নিহাদ আওয়াদ বলেন, ইসরায়েলের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে যে অস্ত্র চুক্তি হয়েছে সেই একই ধরনের মিসাইল দিয়েই গাজায় দুই শতাধিক নিরীহ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করা হয়েছে।

টানা নয়দিন ধরে গাজায় সহিংসতা অব্যাহত রয়েছে। গাজায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২১৮ ফিলিস্তিনি নাগরিক নিহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৬৩টি শিশুও রয়েছে। আর দুই শিশুসহ ইসরায়েলে প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ১২ জন। সেখানে এখন পর্যন্ত আহত হয়েছেন অন্তত ৩০০ জন।

গাজায় দখলদার ইসরায়েলের বর্বর হামলার মধ্যেই দেশটিকে আরও অস্ত্র দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ইতোমধ্যে ইসরায়েলের কাছে ৭৩৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে বাইডেন প্রশাসন।

ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, গত ৫ মে মার্কিন কংগ্রেসকে আনুষ্ঠানিকভাবে অস্ত্র বিক্রি সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছিল। তখন ডেমোক্র্যাটের একটি নতুন প্রজন্ম ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে যুক্তরাষ্ট্রের অব্যাহত এই সমর্থন নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। অস্ত্র বিক্রি নিয়ে উদ্বেগ জানানো হয়। তারা বিষয়টি নিয়ে আরও সময় চান। যদিও ইসরায়েলকে অস্ত্র দেয়ার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বেশিরভাগ আইনপ্রণেতা সমর্থন দিয়েছেন।

তবে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাতের আগেই এই অস্ত্র বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে দাবি করা হয়। কংগ্রেসের পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির এক ডেমোক্র্যাট বলেন, ইসরায়েলকে যুদ্ধবিরতিতে রাজি হওয়ার চাপ না দিয়ে এই প্রস্তাবিত স্মার্ট বোমা বিক্রির ফলে কেবল আরও হত্যাযজ্ঞই চালানো সম্ভব হবে।

এর আগে ঈদ উপলক্ষে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আয়োজিত এক নৈশভোজ বয়কটের আহ্বান জানায় দ্য কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশন্স। মূলত ইসরায়েলের প্রতি বাইডেনের ক্রমাগত সমর্থনের কারণেই মুসলিম দলগুলো তার প্রতি ক্ষুব্ধ। বাইডেনের নৈশভোজ বাদ দিয়ে বরং ‘ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে ঈদ’ নামে অন্য একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে সংস্থাটি।

বিচারকদের ওই সংস্থাটি বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে দেয়া প্রেসিডেন্ট বাইডেন, হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকি এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নিড প্রাইসের বিভিন্ন বিবৃতিতে পূর্ব জেরুজালেম থেকে ফিলিস্তিনিদের জাতিগত নির্মূলকরণের ঘটনা, রমজানে আল আকসা মসজিদে নামাজরত মুসল্লিদের ওপর ইসরায়েলিদের আগ্রাসন এবং গাজার সাম্প্রতিক হামলায় শত শত ফিলিস্তিনির মৃত্যুর ঘটনাকে সম্পূর্ণ উপেক্ষা করা হয়েছে।

তারা বলছে, ‘আমাদের ফিলিস্তিনি ভাই-বোনদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে বিশ্বজুড়ে সব মুসলিমদের জোট হয়ে আমরা মুসলিম কমিউনিটিকে হোয়াইট হাউসে নৈশভোজ বয়কট করার আহ্বান জানাচ্ছি।’

এদিকে, দখলকৃত পশ্চিম তীরে বিক্ষোভ চলাকালে ইসরায়েলি বাহিনী চার ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীকে হত্যা করেছে। অপরদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) পররাষ্ট্রনীতি প্রধান জোসেপ বোরেল এই যুদ্ধবিরতি প্রস্তাব বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি ইইউভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের মধ্যে এক ভার্চুয়াল কনফারেন্সের পরে এ আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এই আহ্বানের পক্ষে হাঙ্গেরি ছাড়া ব্লকের সব সদস্য দেশ সমর্থন দিয়েছে।

টিটিএন/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]