বিশ্বজুড়ে যুদ্ধের ঢাল ছিল ৮৫০০ শিশু: জাতিসংঘ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৯ এএম, ২২ জুন ২০২১ | আপডেট: ১১:২৪ এএম, ২২ জুন ২০২১

সারাবিশ্বে যোদ্ধা ও আত্মঘাতী হামলাকারী হিসেবে বাড়ছে শিশুদের ব্যবহার। গত বছর বিশ্বজুড়ে সাড়ে আট হাজারের বেশি শিশুকে যুদ্ধক্ষেত্রে সৈনিক হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছিল। যাদের মধ্যে প্রাণ হারিয়েছে অন্তত দুই হাজার সাত’শ শিশু। আহত হয়েছে আরও পাঁচ হাজার ৭৪৮ জন।

সোমবার যুদ্ধ ও সংঘাতে শিশুদের ব্যবহার নিয়ে জাতিসংঘের বার্ষিক প্রতিবেদনে উঠে আসে এসব তথ্য। যেখানে আরও উঠে আসে, যুদ্ধে শিশুদের ব্যবহার ছাড়াও যৌন নির্যাতন, অপহরণ ও ত্রাণ পাওয়া থেকে বঞ্চিত হওয়ার বিষয়টি।

সারাবিশ্বে ১৯ হাজার ৩৭৯ শিশুর বিষয়ে খোঁজ নিয়ে এমন তথ্য প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। গত বছর সোমালিয়া, গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গো, আফগানিস্তান, সিরিয়া ও ইয়েমেনে বেশি নির্যাতনের শিকার হয়েছে শিশুরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, হামলা চালানোর কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে শিশুদের। একই সঙ্গে হামলার লক্ষ্যবস্তুতেও রয়েছে শিশুরা। কারণ গত বছর বসতবাড়ি, স্কুল, খেলার মাঠ ছিল বেশিরভাগ হামলায় নিশানা।

অনেক শিশু জঙ্গিদের হাত থেকে মুক্তির পর নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের হাতে ফের ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ছাড়া যুদ্ধের ফলে ত্রাণকর্মীরা পৌঁছাতে না পারায় দেখা দিয়েছে খাদ্য সঙ্কট। যাতে বেশি ভুক্তভোগী শিশুরা। অনেকে আক্রান্ত হয়েছে অপুষ্টি ও নানান রোগে।

এদিকে সহিংসতা থেকে বাঁচতে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে বহু রোহিঙ্গা। যাদের একটা বড় অংশই শিশু, এদের বয়স ১৮ বছরের নিচে। প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছর মিয়ানমার, সোমালিয়া ও সিরিয়ায় যুদ্ধক্ষেত্রে নিয়োগ করা হয়েছিল প্রায় সাত হাজার শিশুকে।

 সূত্র: এডিটিভি, আল জাজিরা

এএমকে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]