কানাডায় পুড়ে ছাই আদিবাসীদের দুই ঐতিহাসিক গির্জা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:১১ পিএম, ২২ জুন ২০২১

কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়া প্রদেশে আদিবাসী সম্প্রদায়ের দুটি ক্যাথলিক গির্জা অগ্নিকান্ডে ধ্বংস হয়ে গেছে। এ ঘটনাকে সন্দেহজনক হিসেবে উল্লেখ করেছে পুলিশ। খবর বিবিসির।

স্যাক্রেড হার্ট গির্জা ও সেন্ট গ্রেগরি’স গির্জা নামে দুটি গির্জায় সোমবার শেষ রাতে প্রায় একই সময়ে আগুন লাগে। এদিন ছিল কানাডার জাতীয় আদিবাসী জনগোষ্ঠী দিবস।

দুটি গির্জাই ১০০ বছরের বেশি পুরনো। এক দমকল কর্মকর্তা জানান, আগুনে তরল দাহ্য পদার্থ ব্যবহার করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পেনটিকটন ইন্ডিয়ান ব্যান্ড রিজার্ভ ও অসওইয়ুস ইন্ডিয়ান ব্যান্ড রিজার্ভে ঘটনা দুটি ঘটেছে। ব্যান্ড হলো কানাডায় আদিবাসীদের দ্বারা পরিচালিত বিশেষ প্রশাসনিক ইউনিট। উপরোক্ত দুটি ব্যান্ডই ক্যামলুপ্স থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে যেখানে গতমাসে ২১৫টি শিশুর দেহাবশেষ উদ্ধার করা হয়েছে।

পেনটিকটন পুলিশের এক কর্মকর্তা সোমবার স্থানীয় সময় রাত ১টার দিকে স্যাক্রেড হার্ট গির্জায় আগুন দেখতে পান। কিন্তু তিনি যখন সেখানে পৌঁছান ততক্ষণে আগুনে পুরো ধ্বংস হয়ে যায় গির্জাটি।

রাত ৩টা ১০ মিনিটের দিকে অলিভার শহরের পুলিস সেন্ট গ্রেগোরি’স গির্জাতেও অগ্নিকাণ্ড হয়েছে বলে রিপোর্ট করে।

অগ্নিকাণ্ডে দুটি ঐতিহাসিক স্থাপত্যই পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে।

অলিভার দমকল বিভাগের প্রধান বব গ্র্যাহাম বলেন, ‘ঘটনাস্থল ও আশপাশ দেখে আমাদের ধারণা হচ্ছে একটি তরল দাহ্য পদার্থ ব্যবহার করা হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক ধারণা হলো আগুন লাগানো হয়েছে।

রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশের (আরসিএমপি) মুখপাত্র সার্জেন্ট জ্যাসন বাইডা বলেন, ‘এটি ইচ্ছাকৃত অগ্নিকাণ্ড এমনটা ধরে আমাদের তদন্ত আগাবে। আরসিএমপি সম্ভাব্য সকল উদ্দেশ্যের সন্ধান করবে এবং আমাদের তদন্তের জন্য সকল তথ্য-প্রমাণ বিবেচনায় নেয়া হবে।’

এমকে/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]