থাইল্যান্ডে প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:০১ পিএম, ০৫ জুলাই ২০২১

থাইল্যান্ডে একটি প্লাস্টিক তৈরির কারখানায় বিস্ফোরণের পর ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে একজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও ২৯ জন। যাদের বেশিরভাগের শরীর কেটে গেছে। মৃত ব্যক্তি ছিলেন দমকলকর্মী। স্থানীয় সময় সোমবার ভোর তিনটায় রাজধানী ব্যাংককে এ আগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা বলছে, বড় ধরনের বিস্ফোরণে কেঁপে উঠে পুরো রাজধানী। বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায় পাশ্ববর্তী সুবর্ণভূমি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের টার্মিনাল থেকেই। বিস্ফোরণের শব্দে বেজে ওঠে বিমানবন্দরের সতর্ক বার্তা। খবর আল জাজিরা।

বিস্ফোরণের পর ক্ষতিকারক কেমিক্যাল ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কায় আশপাশ থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে ফেলা হয়েছে। দুটি আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন প্রায় ৫০০ বাসিন্দা। ঘটনাস্থলের পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে রাখা হয়নি কোনও বাসিন্দাদের। বয়স্কদের রাখা হয়েছে ৯ কিলোমিটার দূরে একটি স্কুলে।

প্লাস্টিক তৈরির কারখানায় বিস্ফোরণের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আশপাশের ৭০টি বসত ঘর। যাদেরও আশ্রয় হয়েছে পাঁচ কিলোমিটার দূরে আশ্রয় কেন্দ্রে।

ব্যাংককের সুবর্ণভূমি বিমানবন্দরের থেকে অল্প কিছু দূরে এই কারখানার অবস্থান। বিস্ফোরণের পর বিমানের কোন সিডিউল বিপর্যয় হয়নি বলে জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। যদিও করোনা মহামারির জন্য আগে থেকেই কমিয়ে দেয়া হয়েছিল বিমানের আশা যাওয়া।

ঘটনাস্থলে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে থাই ফায়ার সার্ভিস। ধারণা করা হচ্ছে কারখানায় থাকা রাসায়নিক পদার্থে আবারও বিস্ফোরণ হতে পারে। ফলে সতর্কতার সাথে উদ্ধার কাজ পরিচালনা হচ্ছে।

আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজে নিয়োজিত একজন স্বেচ্ছাসেবক জানান, আমরা আহতদের উদ্ধারে কাজ করছি। কিন্তু আগুনের শিখা অনেক উঁচুতে হওয়ায় খুব বেগ পোহাতে হচ্ছে।

অগ্নিকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি। কারখানাটির তাইওয়ানভিত্তিক কোম্পানির কোনও বক্তব্য জানা যায়নি।

এদিকে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি আগুন লাগার কারণ। কারখানার মালিকপক্ষেরও কোন বক্তব্যও পাওয়া যায়নি।

সূত্র: আল জাজিরা

এএমকে/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]