দুই বছরের মধ্যে নির্বাচন আয়োজনের ‘প্রতিশ্রুতি’ মিয়ানমার জান্তার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:১৪ পিএম, ০১ আগস্ট ২০২১
ছবি : সংগৃহীত

২০২০ সালের নির্বাচনে ব্যাপক জালিয়াতির অভিযোগ এনে গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসিকে (এনএলডি) হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে নেয় মিয়ানমার সেনাবাহিনী। এ ঘটনার ছয় মাসের মাথায় আগামী দুই বছরের মধ্যে বহুদলীয় নির্বাচন আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিলেন দেশটির জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইং।

রোববার টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে মিয়ানমার জান্তা প্রধান বলেন, দেশের জরুরি অবস্থা শেষ হচ্ছে আগামী ২০২৩ সালের আগস্টে। এর মাঝেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

মিন অং হ্লাইং আরও বলেন, মিয়ানমারের বর্তমান জান্তা সরকার বিশেষ প্রতিনিধির সঙ্গে সংলাপে বসতেও রাজি আছে। ভাষণে মিন অং হ্লাইং মিয়ানমারে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার কথা বলেন। তবে কখন এ পদক্ষেপ নেয়া হবে, সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি তিনি।

army2

গত ১ ফেব্রুয়ারি গণতান্ত্রিক সরকারকে হটিয়ে সেনাবাহিনী ক্ষমতা নেয়ার পর বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয় মিয়ানমারে। এরপর সাধারণ মানুষের সঙ্গে কয়েক দফায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয় দেশটির সেনাবাহিনীর। এতে নয়শো জনের বেশি মানুষ নিহত হন, ব্যাপক ধরপাকড় চলে দেশব্যাপী। বহু মানুষ ভয় আর আতঙ্কে ভিটে ছাড়া হন। ভোট জালিয়াতি, দুর্নীতিসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগ আনা হয় এনএলডি নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনী ক্ষমতা কেড়ে নেয়ার পর প্রতিবাদের ঝড় উঠে বিশ্বব্যাপী। নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাষ্ট্রসহ কয়েকটি দেশ। নিজ দেশের মানুষকে হত্যার নিন্দা করে বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনগুলো। তারা বারবার এসব হত্যাকাণ্ড বন্ধের আহ্বান জানিয়ে আসছে। এদিকে, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার দাবিতে এখনো বিক্ষোভ করছে দেশটির সব শ্রেণি-পেশার মানুষ।

সম্প্রতি করোনার ডেল্টা ধরন ছড়িয়ে পড়ায় বেসামাল অবস্থা দেশটিতে। কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে বেগ পেতে হচ্ছে মিয়ানমার জান্তা সরকারকে। এর মাঝেই গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিতে নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা এলো জান্তা প্রধানের তরফ থেকে।

সূত্র: এনডিটিভি, এএফপি

এসএনআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]