পরিবারের ৪ জনের আত্মহত্যা; এক শিশু মরলো না খেয়ে, আরেক শিশু উদ্ধার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪৭ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের রাজধানী ব্যাঙ্গালুরুতে একই পরিবারের পাঁচ সদস্য মারা গেছেন। প্রাথমিক প্রতিবেদনে পুলিশ জানিয়েছে, পরিবারের চার সদস্য আত্মহত্যা করেছেন এবং ৯ মাস বয়সী একটি শিশু তিনদিন ধরে খেতে না পেয়ে মারা গেছে। খবর এনডিটিভির। 

মরদেহগুলোর সঙ্গে থাকা দুই বছরের এক শিশুকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তিনদিন ধরে মরদেহগুলোর সঙ্গে ছিল শিশুটি। শুক্রবার পরিবারের মৃত সদস্যদের মধ্যে থেকে দুই বছরের শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। এইচ শঙ্কর নামের এক ব্যক্তি পাঁচদিন পর বাড়ি ফিরে হতবাক হয়ে যান। তিনি বুঝতে পারেন যে, তার নাতনি ছাড়া পরিবারের বাকি সব সদস্য মারা গেছেন।

এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আমরা ওই বাড়ির ভেতর থেকে পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করেছি। সেখানে একটি শিশুকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। একই পরিবারের সব সদস্যের একসঙ্গে মারা যাওয়ার কারণ এখনও জানা যায়নি। বেশ কয়েকদিন হয়ে যাওয়ায় মরদেহগুলোতে পচন ধরতে শুরু করেছিল।

পাঁচদিন আগে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে রাগারাগি করে ঘর থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন এইচ শঙ্কর। পুলিশ জানিয়েছে, তার মেয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে চলে এসেছিল। সে বাবার বাড়িতেই থাকবে বলে জানায়। তা নিয়েই মেয়ের সঙ্গে শঙ্করের তর্ক-বিতর্ক হয়।

বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর পরিবারের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য বেশ কয়েকবার ফোন করেন তিনি। কিন্তু কেউ ফোন ধরেনি। বাড়ি ফিরে তিনি তার স্ত্রী (৫০), ছেলে (২৭) এবং দুই মেয়ের মরদেহ দেখতে পান। ক্ষুধার যন্ত্রণায় তার ৯ মাস বয়সী নাতিও মারা যায়। কিন্তু সৌভাগ্যক্রমে দুই বছর বয়সী তার নাতনি বেঁচে গেছে। তাকে মেডিকেল চেকআপের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

টিটিএন/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]