মিয়ানমারে আন্দোলন দমনে শিশুদেরও তুলে নিয়ে যাচ্ছে সেনারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:২০ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

মিয়ানমারে গণতন্ত্রকামীদের আন্দোলন দমনে জান্তা সরকারের গ্রেফতার অভিযান চলছেই। তাদের সন্দেহভাজন কাউকে গ্রেফতার করতে না পারলে ওই ব্যক্তির পরিবারের অন্য সদস্য এবং আত্মীয়-স্বজনকেও তুলে নিয়ে যাচ্ছে সেনারা। এমনকি ২০ সপ্তাহ বয়সী শিশু জান্তা সরকারের এই হীন কর্মকাণ্ড থেকে রেহাই পাচ্ছে না। দেশটিতে নিযুক্ত জাতিসংঘের বিশেষ দূত টম অ্যান্ড্রুজের বরাতে বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এ খবর জানিয়েছে।

টম অ্যান্ড্রুজ বুধবার জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলকে জানিয়েছেন, মিয়ানমারের পরিস্থিতি ক্রমাগত অবনতি হচ্ছে। এমনকি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যে সব পদক্ষেপ গ্রহণ করছে তাও কোনো কাজে আসছে না দেশটিতে।

তিনি বলেন, জান্তা সরকার অভিযুক্তদের ধরতে না পেরে প্রতিনিয়ত তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের অপহরণ করছে। বিশ্বাসযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে তিনি বলেন মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতারে ব্যর্থ হয়ে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১৭৭ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ২০ সপ্তাহ বয়সী শিশুও রয়েছে।

সামরিক জান্তা দেশটিতে এখন পর্যন্ত শিশুসহ কমপক্ষে এক হাজার ১০০-এর বেশি মানুষকে হত্যা করেছে। জুলাই পর্যন্ত ১৪ মাস থেকে ১৭ বছর বয়সী কমপক্ষে ৭৫ শিশুকে হত্যা করেছে তারা। তাই মিয়ানমারে মানবাধিকার লঙ্ঘন ও মৃত্যু এড়াতে পদক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আহ্বান জানিয়েছেন তিন।

জান্তা সরকার ক্ষমতায় আসার পর কমপক্ষে আট হাজার মানুষকে গ্রেফতার করেছে। যারাই তাদের শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে তাদেরই গ্রেফতার করেছে। বাদ যায়নি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, চিকিৎসক, সাংবাদিকরাও। মিয়ানমারে এখন পর্যন্ত দুই লাখ ৩০ হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক গৃহহীন হয়েছে।

এমএসএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]