জাতিসংঘে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য মিথ্যায় পরিপূর্ণ: ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৪৮ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

জাতিসংঘের ৭৬তম সাধারণ অধিবেশনে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেটের দেওয়া ভাষণের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে ইরান। বেনেটের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে ইরান বলছে, তিনি ভাষণের মাধ্যমে ইরান ফোবিয়া ছড়ানোর চেষ্টা করেছেন এবং মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে তাদের চালানো কর্মকাণ্ডগুলো জায়েজ করার চেষ্টা করেছেন। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি মাজিদ তখত রাবঞ্চি এক টুইট বার্তায় বলেন, ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ মিথ্যায় পরিপূর্ণ। আমাদের শান্তিপূর্ণ পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই।

কারণ ইসরায়েলের কাছেই রয়েছে শত শত পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র। বেনেট ফিলিস্তিনের কথা উল্লেখ করতে ব্যর্থ হয়েছেন। তার বক্তৃতায় শুধু ফিলিস্তিনিদের অধিকার থেকে বঞ্চিত রাখার চিত্রই ফুটে ওঠেছে।

জাতিসংঘে ইরানের স্থায়ী মিশন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, বেনেটের দাবির কোনো ভিত্তি নেই। তিনি প্রতারণামূলকভাবে ইসরায়েলকে নির্দোষ প্রমাণের চেষ্টা করেছেন। বিদ্বেষমূলক বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি গত সাত দশকের চালানো অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড এবং দখলদারিত্ব ধামাচাপা দেওয়া চেষ্টা করেছেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ইসরায়েল হচ্ছে একটি দখলদার রাষ্ট্র। তারা গাজা উপত্যকাকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় খোলা কারাগারে পরিণত করেছে।

এর আগে সোমবার জাতিসংঘে দেওয়া ভাষণে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইরান এ অঞ্চলে ইসরায়েল বিরোধীদের মদদ দিচ্ছে। পারমাণবিক অস্ত্রের ছায়াতলে ইরান আধিপত্য বিস্তার করতে চায়।

ভাষণে তিনি দাবি করেন, ইরান পারমাণবিক কর্মসূচির সব রেড লাইন অতিক্রম করে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত ইউরেনিয়াম বৃদ্ধি করেছে। যা আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) সঙ্গে করা সুরক্ষা চুক্তিগুলোর স্পষ্ট লঙ্ঘন।

এমএসএম/টিটিএন/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]