ইরান সফরে যাচ্ছেন ইইউ দূত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪৯ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০২১

পারমাণবিক ইস্যুসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার জন্য ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) দূত এনরিক মোরার তেহরান সফরে যাচ্ছেন। তিনি ইরানসহ অন্য দেশের মধ্যে পারমাণবিক চুক্তি পুনরুজ্জীবিত করার বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) তিনি তেহরান সফরে যাবেন বলে জানিয়েছে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বুধবার (১৩ অক্টোবর) আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এনরিক মোরার সফরটিতে পারমাণবিক চুক্তি ও উভয়পক্ষের মধ্যে স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো বিশেষ করে ইরান-ইইউ সম্পর্ক, আফগানিস্তান বিষয়ে আলোচনা হবে।

পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে পুনরায় আলোচনা ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাবর্তন নিয়ে যখন সবদিক থেকে চাপ বাড়ছে তখনই তেহরান সফরে যাচ্ছেন ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের এ দূত।

জার্মানির বিদায়ী চ্যান্সেলর রোববার বলেছেন, বার্তাগুলো খুব স্পষ্ট, ইরানকে খুব দ্রুতই আলোচনার টেবিলে বসতে হবে। তবে তেহরান ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের কাছ থেকে নিশ্চয়তা চাচ্ছে। আবার যেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতো প্রত্যাহারের ঘটনা না ঘটে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খতিবজাদেহ সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নকে এবার আশ্বস্ত করতে হবে আর যেন পারমাণবিক চুক্তির লঙ্ঘন না হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট চুক্তিতে ফেরার ইঙ্গিত দিলেও দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ মাসের শুরুতে বলেছেন, চুক্তিতে ফেরার সময় শেষ হয়ে গেছে।

ইরান বারবার বলে আসছে, তারা পুনরায় খুব দ্রুত আলোচনা শুরু করতে প্রস্তুত। তবে কবে আলোচনা হবে সে তারিখ এখনো ঘোষণা করা হয়নি।

২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট একতরফাভাবে পারমাণবিক চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়। তারপর থেকেই ইরানের সঙ্গে করা পারমাণবিক চুক্তিটি প্রায় অকার্যকর। চুক্তির মূল উদ্দেশ্য ছিল ইরান পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধ রাখবে। তবে শর্ত ছিল ইরানের ওপর দেওয়া নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র চুক্তি থেকে সরে গিয়ে ইরানের ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

এমএসএম/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]