সৌদি জোটের অভিযানে ১৬০ হুথি নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:০৯ পিএম, ১৬ অক্টোবর ২০২১

ইয়েমেনের আবিদায় সৌদি জোটের পরিচালিত অভিযানে ১৬০ জন হুথি বিদ্রোহী নিহত হয়েছে। ধ্বংস করা হয়েছে ১১টি সামরিক যানবাহন। সৌদি জোট এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় ইয়েমেনের মারিব অঞ্চলের আবিদা জেলায় হুথিদের লক্ষ্য করে ৩১টি অভিযান পরিচালনা করেছে সৌদি জোট। গত সেপ্টেম্বরে আবিদা জেলা দখল করে সাধারণ মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছে হুথি বিদ্রোহীরা। পাশাপাশি মানবিক সহায়তা প্রবেশেও বাধা দেওয়া হচ্ছে বলেও বিদ্রোহী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

সৌদি জোট বলছে, হুথিদের সহিংসতা থেকে সাধারণ নাগরিকদের রক্ষায় তারা ইয়েমেনি সেনাবাহিনীকে অব্যাহত সমর্থন দিয়ে যাবে।

এর আগে শুক্রবার একই ধরনের অভিযানে আবিদায় সৌদি জোটের অভিযানে ১৮০ হুথি বিদ্রোহী নিহত হয় এবং ১০টি সামরিক যান ধ্বংস করা হয়।

এদিকে শনিবার সকালে সৌদি আরবের জাজান এলাকা লক্ষ্য করে ড্রোন ছুড়ে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা। কিন্তু সৌদির আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হুথিদের ছোড়া ড্রোনটিকে আকাশেই ধ্বংস করে দেয়। সম্প্রতি সৌদির বিভিন্ন এলাকায় বেসামরিক স্থাপনা লক্ষ্য করে ক্রমাগত বোমাভর্তি ড্রোন হামলা চালাচ্ছে হুথিরা।

২০১৪ সালে হুথি বিদ্রোহীরা ইয়েমেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকারকে উৎখাত করে দেশটির উত্তরাঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ নেয়। ২০১৫ সালে ইয়েমেনি সরকারকে সহযোগিতা এবং বিদ্রোহীদের দমনের লক্ষ্যে ইয়েমেন যুদ্ধে যোগ দেয় সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট। তবে তাদের এই অভিযানে ইয়েমেনের হাজার হাজার বেসামরিক মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া ঘরবাড়ি হারিয়েছেন কয়েক লাখ মানুষ।

জাতিসংঘের মতে, বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহ মানবিক সংকট চলছে ইয়েমেনে। দেশটির ৮০ শতাংশ মানুষেরই জরুরি ত্রাণ সহায়তা প্রয়োজন বলে জানিয়েছে তারা।

সৌদি জোটের বিরুদ্ধে লড়তে হুথি বিদ্রোহীদের ইরান অর্থ ও অস্ত্র দিয়ে সহযোগিতা করছে বলে অভিযোগ করে আসছে রিয়াদ। ইয়েমেন যুদ্ধে জড়ানোর পর গত কয়েক বছরে তারাও বেশ কয়েকবার সীমান্ত এলাকায় হামলার শিকার হয়েছে। সম্প্রতি সৌদির বিভিন্ন স্থাপনা লক্ষ্য করে হামলার চেষ্টা বাড়িয়ে দিয়েছে হুথি বিদ্রোহীরা।

এমএসএম/টিটিএন/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]