চীন আক্রমণ করলে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষায় এগিয়ে আসবে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৩২ এএম, ২২ অক্টোবর ২০২১
ছবি-সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, চীন তাইওয়ান আক্রমণ করলে, তাইওয়ানকে প্রতিরক্ষা সহায়তা দিতে এগিয়ে আসবে যুক্তরাষ্ট্র। চীন ও তাইওয়ানের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর মাঝে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) এ মন্তব্য করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

সিএনএন টাউন হলে তাইওয়ানকে প্রতিরক্ষা সহায়তার দেওয়ার এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তাইওয়ানের প্রতি আমাদের একটা প্রতিশ্রুতি রয়েছে। এর আগেও তিনি এবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন মন্তব্য করেন।

প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কানাডা ও ইউরোপে ন্যাটো মিত্রদের রক্ষা করার জন্য যেমন একটি প্রতিশ্রুতি রয়েছে ঠিক তেমনি জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, তাইওয়ানের সঙ্গেও রয়েছে।

পরবর্তীতে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের জানানো হয়, তাইওয়ানের ব্যাপারে মার্কিন নীতির কোনো পরিবর্তন হয়নি।

গত ৯ অক্টোবর তাইওয়ানকে পুনরায় একত্র করার ঘোষণা দেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তবে শান্তিপূর্ণভাবেই তাইওয়ানকে একত্র করা হবে বলে জানান তিনি। এর পাল্টা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টও। জাতীয় দিবস (১০ অক্টোবর) বেইজিংকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রেসিডেন্ট তাসাই ইন-ওয়েন বলেন, তাইওয়ান কখনও চীনের কাছে মাথানত করবে না। দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষায় নিজেদের প্রতিরক্ষা বলয় জোরদার করার কথাও জানান তিনি।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, বেইজিং ধারাবাহিকভাবে তাইওয়ানকে রাজনৈতিক ও সামরিক চাপের মুখে ফেলেছে। প্রতিনিয়ত তাইওয়ানের আকাশে চীনা যুদ্ধবিমান টহল দিচ্ছে। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহেই বেইজিংয়ের ১৪৯টি সামরিক বিমান টহল দিয়েছে তাইওয়ানের আকাশসীমায়।

চীন তাইওয়ানকে তাদের নিজস্ব রাজ্য দাবি করে আগ্রাসন চালিয়ে আসছে। যদিও তাইওয়ান তাদের স্বতন্ত্র বলে দাবি করে। সম্প্রতি তাইওয়ানকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নানা পদক্ষেপগ্রহণ, চীনের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সূত্র: এএফপি, এনডিটিভি, রয়টার্স

এসএনআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]