রাজের হাত ধরে তৃণমূলে ৫০০ বিজেপি-সিপিআইএম কর্মী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:২২ পিএম, ২৬ নভেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

পশ্চিমবঙ্গ সংবাদদাতা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ব্যারাকপুরের তৃণমূল বিধায়ক চিত্র পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর হাত ধরে দলটিতে যোগদান করলেন বিজেপি ও সিপিআইএমের প্রায় ৫০০ কর্মী।

সম্প্রতি দমদম ব্যারাকপুর সাংগঠনিক জেলার দলীয় কার্যালয় টিটাগড় টাটাগেট এলাকার কার্যালয়ে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেন তারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সিপিআইএমের গারুলিয়া পৌরসভার দুবারের পৌরমাতা, ব্যারাকপুর পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী পৌরমাতা, ব্যারাকপুরের সংসদ সদস্য তথা রাজ্য বিজেপির সহসভাপতি অর্জুন সিংয়ের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত ভিশাল যাদব, দেবেন্দ্র যাদব, ব্যারাকপুরের প্রাক্তন বিধায়ক শীলভদ্র দত্তের ঘনিষ্ঠ গোপাল পাল প্রমুখ।

এ দিনের যোগদান কর্মসূচি বিষয়ে ব্যারাকপুরের বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী বলেন, আমার মনে হয় যারা এখন তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন তারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের সঙ্গী হতে চাইছেন। এখন আর বিরোধীরা নেই। রাজনীতি, মারামারি গুন্ডাগিরি এসব আমাদের করার প্রয়োজন নেই। আমার মনে হয় বিজেপি, সিপিএম বা অন্য যে দল থেকে যারা আসছেন, তারা আসছেন উন্নয়ন করতে, মানুষের সঙ্গে আরও জনসংযোগ বাড়াতে। সারা বাংলা তথা সারা ভারতবর্ষ জুড়ে যে উন্নয়ন হচ্ছে তার সঙ্গী হতে আসছেন। এ জন্যই আমরা সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, এটা একটা ভালো লক্ষণ। সবাই আমাদের দলে আসতে চাইছেন। কেউ সিপিএম করতেন, তারা আমাদের দলে যোগদান করলেন। আবার কেউ তৃণমূল কংগ্রেস করতেন, তারা বিজেপিতে গিয়ে পুনরায় তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন। তারা স্বীকার করেছেন যে ভুল করে তারা বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন।

বিভিন্ন দল থেকে আসা এত মানুষ তৃণমূলে যোগ দিলেন তাতে কি পুরভোটে কোন অসুবিধা হবে?- এই প্রসঙ্গে রাজ চক্রবর্তী বলেন, পুরসভার নির্বাচন যেটা হবে সেটা মানুষ ভোট দেবেন। কিন্তু এই যে সংগঠনটি এত বড় হচ্ছে, সংগঠনটা আরও শক্তিশালী হচ্ছে- এটাতে আমাদের সুবিধা হবে। মানুষের কাছে পৌঁছাতে সুবিধা হবে, মানুষের জন্য কাজ করতে আমাদের আরও সুবিধা হবে।

কেএসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]