এবার আফ্রিকার ৭ দেশের ওপর মালদ্বীপের নিষেধাজ্ঞা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১২ পিএম, ২৮ নভেম্বর ২০২১

এবার আফ্রিকার ৭ দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মালদ্বীপ। এসব দেশ থেকে মালদ্বীপে ভ্রমণের অনুমতি পাওয়া যাবে না। আজ রোববার (২৮ নভেম্বর) থেকে নতুন এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হচ্ছে। করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর এমন পদক্ষেপ নিলো মালদ্বীপ সরকার। খবর রয়টার্সের।

এক বিবৃতিতে মালদ্বীপের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, জিম্বাবুয়ে, মোজাম্বিক, নামিবিয়া, লেসোথো এবং এসওয়াতিনির ভ্রমণকারীদের মালদ্বীপে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না।

গত দুদিন এসব দেশ থেকে যেসব ভ্রমণকারী মালদ্বীপে পৌঁছেছেন তাদের আগামী ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বলে জানানো হয়েছে।

সম্প্রতি ওমিক্রন নামে করোনার নতুন ধরন শনাক্ত হওয়ার পর থেকেই উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত করোনাভাইরাসের এই নতুন ধরনকে শুক্রবার উদ্বেগের কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

তারা জানিয়েছে, করোনার অন্য সংক্রামক ধরনগুলোর তুলনায় নতুনটিতে পুনঃআক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। সে কারণে বিভিন্ন দেশে ওমিক্রন নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

চলতি মাসের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়। এরপর থেকেই একের পর এক দেশে করোনার এই অতি সংক্রামক ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি ধরা পড়ছে।

এদিকে একের পর এক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপকে ‘শাস্তি’ হিসেবে দেখছে দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার। স্থানীয় সময় শনিবার (২৭ নভেম্বর) দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার বিষয়টির সমালোচনা করে। এতে বলা হয়েছে, বিজ্ঞানের চমৎকার সাফল্যের জন্য সাধুবাদ জানানো উচিত, শাস্তি নয়। দক্ষিণ আফ্রিকা অনেক দ্রুত করোনার এই নতুন ধরন শনাক্ত করতে পেরেছে জিনোম সিকোয়েন্স পরীক্ষার মাধ্যমে। কিন্তু সেটির ‘শাস্তি’ পাচ্ছে তারা এখন।

যুক্তরাজ্যে দুইজন, জার্মানিতে দুইজন, বেলজিয়ামে একজন, ইতালিতে একজন এবং চেক রিপাবলিকে একজনের শরীরে নতুন ধরন ওমিক্রনের অস্তিত্বের কথা জানা গেছে। এর আগে, দক্ষিণ আফ্রিকার পর ইসরায়েল, হংকং ও বতসোয়ানায় ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়।

টিটিএন/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]