মহামারিতেও বিনিয়োগ বেড়েছে যুক্তরাষ্ট্র-ভিয়েতনামের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:২০ এএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

অডিও শুনুন

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকেই বিশ্বব্যাপী থমকে গেছে বিনিয়োগ। কমেছে অর্থনৈতিক গতি। দেশে দেশে কমেছে বিনিয়োগের হার। তবে এক্ষেত্রে ভিন্ন চিত্র দেখে গেছে যুক্তরাষ্ট্র ও ভিয়েতনামের ক্ষেত্রে। মহামারির মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাবেও একে অপরের মধ্যে বিনোয়োগ একই রকম শক্তিশালী অবস্থায় আছে। বুধবার (৮ ডিসেম্বর) ভিনএক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে মার্কিন দূতাবাসের চার্জ ডি অ্যাফেয়ার্স ম্যারি ডামোর ভিয়েতনাম-ইউএস বাণিজ্য ফোরামে বলেন, স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা, জ্বালানি, প্রযুক্তির মতো বিভিন্ন ক্ষেত্রে দুই দেশ একে অপরকে সহযোগিতা করছে।

ভিয়েতনামে বিনোয়োগকারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান ১১তম। এই মুহূর্তে ভিয়েতনামে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগের পরিমাণ প্রায় এক হাজার কোটি ডলার।

ভিয়েতনামের অটোমেকার ভিনফাস্ট সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরির জন্য ২০ কোটি ডলারের বেশি বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। ধারণা করা হচ্ছে, এতে সেখানে এক হাজারের বেশি কর্মসংস্থান তৈরি হবে।

ভিয়েতনামের শিল্প ও বাণিজ্য উপমন্ত্রী ডো থাং হাই বলেন, করোনার প্রভাব দুই দেশের মধ্যে নতুন বাণিজ্যের সুযোগ তৈরি করেছে। এর মাধ্যমে ভিয়েতনাম ও যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ব্যবসায়িক উন্নয়ন ঘটবে।

যুক্তরাষ্ট্রে সিনিয়র কাউন্সিলর এবং ভিয়েতনাম ট্রেড অফিসের প্রধান বুই হুয় সন বলেন, করোনার চতুর্থ ঢেউয়ের সময় ভিয়েতনাম থেকে পণ্য সরবরাহ কমেছে। তবে অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য ভিয়েতনামের সরবরাহকারীরা উত্পাদন বাড়াচ্ছেন।

১৯৯৫ সালে দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন হয়। তখন ভিয়েতনাম ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ ছিল ৪৫ কোটি ডলার। গত বছর এর পরিমাণ দাঁড়ায় নয় হাজার ১০০ কোটি ডলারের ওপরে। অন্যদিকে চলতি বছরের প্রথম ১০ মাসে বাণিজ্য হয়েছে প্রায় নয় হাজার কোটি ডলার। এসময় ভিয়েতনাম যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় আট হাজার কোটি ডলার মূল্যের পণ্য রাপ্তানি করেছে।

এমএসএম/টিটিএন/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]