সড়কপথেও বাংলাদেশের সঙ্গে যোগসূত্র স্থাপন করবে ত্রিপুরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৫৩ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২২

ত্রিপুরা প্রতিনিধি

বাংলাদেশের সঙ্গে ত্রিপুরার যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উন্নত করার লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক সড়কপথও তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ভারতের সামাজিক ন্যায় ও ক্ষমতায়ন দপ্তরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) আগরতলায় একথা বলেন তিনি।

মহারাজা বীর বিক্রম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সমন্বিত টার্মিনাল ভবন উদ্বোধনের পর শনিবার থেকে শুরু হয় যাত্রী পরিষেবা প্রদান কাজ। আর এতে প্রথমবারের মতো যারা ইন্ডিগোর বিমানে কলকাতা থেকে আগরতলায় গিয়ে পৌঁছান, তাদেরকে স্বাগত জানাতে সেখানে উপস্থিত হন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রতিমা ভৌমিক। এসময় তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে যোগসূত্র স্থাপন করতে আন্তর্জাতিক সড়কপথের কথা উল্লেখ করেন।

জানা গেছে, এ জন্য যাবতীয় সমীক্ষাসহ জমি পরিদর্শনের কাজ এবং সার্ভেও সম্পন্ন করা হয়েছে। সম্প্রতি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে এ নিয়ে একটি বৈঠকও করেছেন বলেও জানান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

ত্রিপুরা রাজ্যের উদয়পুরের ত্রিপুরা সুন্দরী মন্দির থেকে মেলাঘর হয়ে সোনামুড়া এবং সেখানকার চেকপোস্ট থেকে সরাসরি কুমিল্লার সঙ্গে সড়কপথে যোগাযোগের পরিকল্পনা রয়েছে। চেকপোস্ট থেকে কুমিল্লার দূরত্ব মাত্র ১১ কিলোমিটার বলেও তিনি জানান। এটি সম্ভব হলে রাজ্যের জন্য আরও সম্ভাবনার দ্বার খুলবে বলেও মনে করেন এই মন্ত্রী।

গত ৪ জানুয়ারি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিমানবন্দরটির সমন্বিত টার্মিনাল ভবনের উদ্বোধন করেন। প্রতিমা ভৌমিক বলেন, সমন্বিত টার্মিনাল ভবনটিতে ব্যস্ততম সময়েও প্রায় ১২শ যাত্রী যাতায়াত করার মতো সুবিধা রয়েছে। এছাড়া বিমান যাত্রীদের জন্য আখাউড়া চেকপোস্ট খোলা হলে প্রতিদিন প্রায় পাঁচ হাজার যাত্রী এই পরিষেবার সুযোগ নিতে পারবেন। তিনি বলেন, বর্ধিত চেক-ইন কাউন্টার, অত্যাধুনিক লাইন, ব্যাগেজ স্ক্রীনিং সিস্টেম, ফুড কোর্ট, চাহিদা অনুযায়ী খাবারসহ বিশ্বমানের গুচ্ছ আউটলেটও ভ্রমণকারীদের সেবা সুনিশ্চিতি করবে।

এসএনআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]