মহামারিতেও দ্রুত প্রসারিত হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার অর্থনীতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১৭ পিএম, ২৫ জানুয়ারি ২০২২

করোনা মহামারির মধ্যেও দক্ষিণ কোরিয়ার অর্থনীতি দ্রুত গতিতে এগিয়েছে। ২০২১ সালে দেশটির অর্থনীতি ১১ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রসারিত হয়েছে। রপ্তানি বৃদ্ধি ও অবকাঠামোমূলক কার্যক্রমের কারণে এটি সম্ভব হয়েছে।

তাছাড়া ক্যাপিটাল ইনভেস্টে কম টেম্পারিং ও করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত সেবাখাত ধীরে ধীরে পুনরুদ্ধার হওয়ায়ও দেশটির অর্থনীতি প্রসারিত হওয়ার অন্যতম কারণ। মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) নিক্কেই এশিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

মঙ্গলবার ব্যাংক অব কোরিয়ার (বিওকে) প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে, ২০২১ সালে দেশটির জিডিপি বেড়েছে ৪ শতাংশ। মহামারি সত্ত্বেও দেশটির রপ্তানি বেড়েছে। যা মোট দেশজ উৎপাদনে ইতিবাচক অবদান রাখে।

বিওকে প্রত্যাশা করছে চলতি বছর দেশটির জিডিপি তিন শতাংশ বাড়বে। কারণ এশিয়ার চতুর্থ বৃহত্তম অর্থনীতির দেশটি কম্পিউটারের চিপ রপ্তানি ও পাবলিক ব্যয় বাড়িয়ে ইতিবাচক ফল পেয়েছে। যদিও করোনার নতুন ধরন দেশটির জন্য হুমকি। ওমিক্রনের প্রকোপ আবার ভোক্তাদের ওপর প্রভাব ফেলতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ব্যাংকটির অর্থনীতি বিভাগের প্রধান হোয়াং সাং পিল বলেন, বিশ্বব্যাপী আমাদের চিপগুলোর চাহিদা স্থিতিস্থাপক অবস্থায় রয়েছে। শক্তিশালী রপ্তানি দক্ষিণ কোরিয়ার প্রবৃদ্ধির গতিকে শক্ত করবে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, সামাজিক বিধিনিষেধের ব্যাপারে মানুষ অভ্যস্ত হয়ে গেছে। আগের থেকে করোনার প্রকোপ এবার কম বলেও জানান তিনি।

অক্টোবর-ডিসেম্বরে দেশটির অর্থনীতি প্রসারিত হয় এক দশমিক এক শতাংশ। এ সময় রয়টার্সের জরিপের পূর্বাভাসকে ছাড়িয়ে যায় দেশটি। অন্যদিকে চতুর্থ প্রান্তিকে দেশটির প্রবৃদ্ধি হয় চার দশমিক এক শতাংশ। যা রয়টার্সের পূর্বাভাস তিন দশমিক সাত শতাংশকে অতিক্রম করে।

এমএসএম/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]