মোদী সরকারের পদ্মভূষণ প্রত্যাখ্যান করলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:১৭ এএম, ২৬ জানুয়ারি ২০২২
পশ্চিম বঙ্গের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য/সংগৃহীত ছবি

ভারতের নরেন্দ্র মোদী সরকারের দেওয়া পদ্মভূষণ সম্মান প্রত্যাখ্যান করেছেন পশ্চিম বঙ্গের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। মঙ্গলবার রাতে তার পারিবারিক সূত্রে এই খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম। এদিন সন্ধ্যায় পশ্চিম বঙ্গের সাবেক
এই মুখ্যমন্ত্রীকে পদ্মভূষণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়।

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের স্ত্রী মীরা ভট্টাচার্যও ভারতীয় গণমাধ্যমকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। তার কথায়, বুদ্ধদেব শারীরিকভাবে অশক্ত হলেও সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে তিনি আগের মতোই দৃঢ়চেতা ও সবল। পদ্মসম্মান ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

রাতে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য নিজেই এক বিবৃতি দিয়ে জানান, ‘পদ্মভূষণ পুরস্কার নিয়ে আমি কিছুই জানি না। আমাকে এ নিয়ে কেউ কিছু বলেনি। যদি আমাকে পদ্মভূষণ পুরস্কার দিয়ে থাকে, তাহলে আমি তা প্রত্যাখ্যান করছি।’

কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের দেওয়া পদ্মসম্মান কী গ্রহণ করবেন বাংলার শেষ কমিউনিস্ট মুখ্যমন্ত্রী? মঙ্গলবার রাত থেকে সেই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছিল রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে। যে বিজেপির ‘বিপদ’ সম্পর্কে বারবার রাজ্যকে সতর্ক করেছেন, জীবনের শেষ সময়ে এসে তিনি তাদের দেওয়া সম্মান নেবেন কি না তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই কৌতূহল তৈরি হয়েছিল। কিন্তু বুদ্ধদেব নিজেই সেই জল্পনার অবসান ঘটান।

মঙ্গলবার রাতে তার পরিবারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, বুদ্ধদেবের বাড়িতে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ফোন করা হয়েছিল। মঙ্গলবার দুপুরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রতিনিধি ফোনে জানান, বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য পদ্মভূষণ পাচ্ছেন। তার পরেই ফোন কেটে যায়। রাতে বুদ্ধদেবের নাম পদ্মসম্মানের জন্য ঘোষণা করে দেয় কেন্দ্রীয় সরকার। পশ্চিমবঙ্গের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী তখনো বিষয়টি জানতেন না। পরে খবর জেনে পত্রপাঠ সম্মান প্রত্যাখ্যান করেছেন।

বুদ্ধদেবকে পদ্মভূষণ দেওয়ার কথা ঘোষণা হতে সাড়া পড়ে সিপিএমের অন্দরেও। দলের রাজ্যসভা সাংসদ বিকাশ ভট্টাচার্য জানান, বুদ্ধদেব পদ্মসম্মান নেবেন না। রাজ্যের সাবেক মন্ত্রী তথা সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রের রাতে যাওয়ার কথা বুদ্ধদেবের পাম অ্যাভিনিউয়ের বাড়িতে। যদিও বুদ্ধদেবের পারিবারিক সূত্রে জানানো হয়, তার আগেই বুদ্ধদেব ওই খেতাব প্রত্যাখ্যানের সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছিলেন।

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে ওই সম্মান দেওয়া হচ্ছিল, ‘সামাজিক ক্ষেত্রে তার অবদান’-এর স্বীকৃতির কারণে। বর্তমানে পদ্মভূষণ সম্মানের জন্য কারও নাম ঘোষণা করার আগে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সম্মতি নেয় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। মঙ্গলবার বিকেলে ‘গীতশ্রী’ সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়কে ফোন দিয়ে তার সম্মতি চাওয়া হয়েছিল। তিনিও তার অসম্মতির কথা জানিয়ে দেন। এর আগে ‘ভারতরত্ন’ পুরস্কার ফিরিয়ে দিয়েছিলেন বাংলার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু।

এআরএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]