ত্রিপুরার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের যত আলোচিত মন্তব্য

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৬ এএম, ১৫ মে ২০২২

পদত্যাগ করেছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। শনিবার (১৪ মে) বিকালে রাজ্য সরকারের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি। তবে ক্ষমতায় থাকাকালীন তার একের পর এক মন্তব্য নিয়ে তুমুল বিতর্ক হয়।

একবার তিনি আগরতলায় এক অনুষ্ঠানে বলেন, মহাভারতের যুগেও ইন্টারনেট ছিল। তার ফলে অন্ধ ধৃতরাষ্ট্রকে কুরুক্ষেত্রে বর্ণনা দিতে পেরেছিলেন সঞ্জয়। বলেন সেই যুগে কৃত্রিম উপগ্রহেরও অস্তিত্ব ছিল।

আলোচনা সভায় একবার বিপ্লব বলেন,‘‘সরকারি চাকরির জন্য নেতাদের পেছনে ঘুরে লাভ কি? স্নাতকদের উচিত গরু পালন করা। গরুর দুধ বেচে তারা ১০ বছরে ১০ লাখ টাকা আয় করতে পারবেন।’’ শিক্ষিত বেকার যুবকদের পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘‘আপনারা হাঁস পালন করুন। তা হলে ডিমও পাবেন, তা বিক্রি করে আয় করতে পারবেন। আবার পরিবেশে অক্সিজেনের মাত্রাও বৃদ্ধি পাবে।’’ তার ভাষ্যমতে, হাঁস পরিবেশে অক্সিজেন বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

মিস ওয়ার্ল্ড নিয়ে তার মন্তব্যেও বিতর্কের ঝড় ওঠে। তিনি বলেন, বিশ্বের দরবারে ভারতীয় নারী বলতে মিস ওর্য়াল্ড ঐশ্বরিয়া রায়কে বোঝায়। প্রাক্তন মিস ওয়ার্ল্ড ডায়ানা হেডেন ভারতীয় নারীর প্রতিনিধি হতে পারেন না। অথচ ডায়ানার জন্ম হায়দরাবাদের এক ভারতীয় খ্রিস্টান পরিবারে।

বিপ্লব বলেন, আগের দিনে ভারতীয় মহিলারা প্রসাধন ব্যবহার করতেন না। তারা শ্যাম্পু ব্যবহার করতেন না, মেথির জল আর কাদা-মাটি দিয়ে চুল ধুতেন। বিভিন্ন সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা আসলে মার্কেটিং মাফিয়াদের কৌশল।

সিভিল সার্ভিস দিবসে তার মন্তব্যও ছিল মনে রাখার মতো! বিপ্লব বলেন, ‘‘মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়াররা নন, সিভিল ইঞ্জিনিয়াররা আসুন সিভিল সার্ভিসে।’’

সরকারি অনুষ্ঠানের এক মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ত্রিপুরার বিজেপি সরকারের পেছনে লাগলে নখ উপড়ে নেওয়া হবে।

রবীন্দ্রজয়ন্তীতে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ব্রিটিশ শাসনের প্রতিবাদ জানিয়ে নোবেল পুরস্কার প্রত্যাখান করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

এক বুদ্ধপূর্ণিমার দিন বিপ্লব বলেন, ‘‘ভগবান বুদ্ধ বৌদ্ধধর্ম প্রচারে পায়ে হেঁটে চীন-জাপান-মিয়ানমার সফর করেন।’’

দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়েও মন্তব্য করেন বিপ্লব দেব। তিনি বলেন, ‘‘মোদীজির বৃদ্ধা মা রয়েছেন। কিন্তু তিনি প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে থাকেন না। ১০ ফুট বাই ১২ ফুট একটি ঘরে থাকেন। এখনও তার এক ভাই মুদির দোকান চালান। আর এক ভাই অটো চালক। সারা দুনিয়ায় আর কোথাও কি এমন একজনও প্রধানমন্ত্রী আছেন?”

২০১২ সালে গেরুয়া শিবিরের এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, কমিউনিস্টরা যদি সব দেশে থাকতে পারেন, বিজেপি নয় কেন? তার মতে, এবার বিজেপি দখল নেবে নেপাল-শ্রীলঙ্কার।

বিজেপির রাজ্যের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের ‘গুজব’ উঠেছে। এর মাঝে পদত্যাগ করলেন বিপ্লব। যদিও সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বিপ্লব দেব জানিয়েছেন, তাকে দলীয় সংগঠন আরও মজবুত করার দায়িত্ব দিচ্ছে দল।

২০১৮ সালের ৯ মার্চ প্রথমবার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন বিপ্লব দেব। প্রথমবার ত্রিপুরায় বিজেপি ক্ষমতায় আসার পরে প্রথম মুখ্যমন্ত্রী হন তিনি।

সূত্র: আনন্দবাজার

এসএনআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]