ভারতে সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা দিতে দীপু মনির আহ্বান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৪১ পিএম, ২২ মে ২০২২
ছবি: সংগৃহীত

ভারতে সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা দিতে দেশটির সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শনিবার দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটকের রাজধানী বেঙ্গালুরুতে এক সমাবেশে দেওয়া ভাষণে প্রত্যেক নাগরিকের মৌলিক অধিকার রক্ষা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করার আহ্বান জানান তিনি। ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

দীপু মনি বলেন, ধর্মীয় স্বাধীনতা ও ধর্মীয় আচার পালনের স্বাধীনতার বিষয়ে সংবিধানের বিধানসমূহের নিরপেক্ষ প্রয়োগ শান্তি ও স্থায়িত্ব নিশ্চিত করবে। ভারতে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এটা আমাদের সব দেশের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি ও আরএসএস-এর ঘনিষ্ঠ থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশন আয়োজিত ইন্ডিয়া আইডিয়াস কনক্লেভ এ ‘ইন্ডিয়া@২০৪৭’ শীর্ষক এক অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন দীপু মনি।

বৈশ্বিক শক্তিগুলোর একটি অন্যতম সম্মানিত রাষ্ট্র হিসেবে আবির্ভূত হতে হলে ভারতকে সংবিধানে উল্লেখিত দেশটির প্রতিষ্ঠাদাতাদের স্বপ্নগুলো উপলব্ধি করতে হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তার মতে, মৌলিক অধিকারের নিরাপত্তা এবং সুরক্ষা নিশ্চিত করার মাধ্যমে নাগরিকদের, বিশেষ করে তফসিলি জাতি-উপজাতি, ওবিসি (অন্যান্য পশ্চাতপদ শ্রেণি) এবং সমাজের সব স্তরের নারীদের সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচনের ক্ষেত্র তৈরি করতে পারবে ভারত।

বিভিন্ন স্তরে ভারত এবং বাংলাদেশের সহযোগিতা বাড়ানোর উপায়গুলোর ওপর জোর দেওয়ার কথাও বলেন তিনি। দীপু মনি বলেন, ভারত বিভিন্ন ক্ষেত্রে তার প্রতিবেশী দেশগুলোর নেতৃত্ব দিতে পারে। এজন্য অভ্যন্তরীণ শান্তি ও সম্প্রীতি নিশ্চিত করার পদক্ষেপ নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, সামাজিক স্তরবিন্যাস কেবল দুর্বল অংশগুলোকেই বঞ্চিত করবে না বরং বিভাজনকারী নীতি এবং পদ্ধতিরও জন্ম দেবে। তাদের মর্যাদা পুনরুদ্ধার করা এবং শোষণ থেকে রক্ষার মাধ্যমে সমাজে একটি নতুন শক্তি হিসেবে আবির্ভূত হতে পারবে ভারত এবং অগ্রগতির সমান অংশীদার হতে পারবে তারা।

টিটিএন/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]