২০ বছর পর জাপানের রেড আর্মির প্রতিষ্ঠাতার মুক্তি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:০৯ পিএম, ২৮ মে ২০২২

২০ বছর পর মুক্তি পেলেন জাপানের রেড আর্মির সহপ্রতিষ্ঠাতা ফুসাকো শিজেনোবু। ১৯৭৪ সালে দূতাবাস অবরোধের অভিযোগে সশস্ত্র গোষ্ঠীটির এই সহপ্রতিষ্ঠাতাকে সাজা দেওয়া হয়। খবর বিবিসির।

২০০০ সালে জাপানের ওসাকা শহর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার আগ পর্যন্ত প্রায় কয়েক দশক ধরে আত্মগোপনে ছিলেন ৭৬ বছর বয়সী ফুসাকো শিজেনোবু।

একসময় ত্রাস সৃষ্টিকারী রেড আর্মি বড় বড় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল।

ইসরায়েলের একটি বিমানবন্দরে প্রাণঘাতী হামলা চালানো ছাড়াও লোকজনকে অপহরণ ও ছিনতাইয়ের মতো একাধিক ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছিল এই রেড আর্মি।

১৯৭৪ সালে নেদারল্যান্ডসের হেগেতে অবস্থিত ফরাসি দূতাবাসে হামলার দায়ে ফুসাকো শিজেনোবুকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। রেড আর্মির তিন সশস্ত্র যোদ্ধা প্রায় ১০০ ঘণ্টা ধরে ফরাসি রাষ্ট্রদূত ও আরও কয়েকজনকে জিম্মি করে রেখেছিলেন। রেড আর্মির এক সদস্যকে ফ্রান্স মুক্ত করে দেওয়ার পর ওই গোষ্ঠী সিরিয়ায় চলে যায় এবং জিম্মিদশার অবসান ঘটে।

হামলায় সরাসরি অংশ না নিলেও হামলায় সমন্বয়কারী হিসেবে অভিযুক্ত করে ও তাতে জড়িত থাকার অভিযোগে ২০০৬ সালে ফুসাকো শিজেনোবুকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দেন জাপানের একটি আদালত।

রায়ের পাঁচ বছর আগেই বিচার চলাকালে তিনি রেড আর্মি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন এবং আইনের মাধ্যমে নতুন করে লড়াই শুরুর ঘোষণা দেন। সর্বশেষ ১৯৮৮ সালে ইতালিতে যুক্তরাষ্ট্রের একটি সামরিক ক্লাবে রেড আর্মি গাড়িবোমা হামলা চালিয়েছিল বলে জানা যায়।

কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর ফুসাকো শিজেনোবু নিজেদের লক্ষ্য অর্জনে ‘নিরপরাধ মানুষের ক্ষতি’ করায় সবার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। ১৯৭২ সালে তেল আবিবের লোদ বিমানবন্দরে হামলায় ২৬ জনের মৃত্যুর জন্যও অনুশোচনা প্রকাশ করেন তিনি।

টিটিএন/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]