পরীক্ষা না দিয়েই চাকরির অভিযোগ

কলকাতা হাইকোর্টের পথে অনুব্রতকন্যা

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৭ এএম, ১৮ আগস্ট ২০২২

স্কুলে বেআইনি নিয়োগের জেরে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে চাকরি খোয়াতে হয়েছে প্রাক্তন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর মেয়ে অঙ্কিতাকে। এবার ফের একবার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতিতে নাম জড়াল পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের মেয়ে সুকন্যা মণ্ডলের। বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) সুকন্যাকে সশরীরে হাইকোর্টে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়।

একদিকে বাবা অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে গরু পাচারের অভিযোগ। তিনি আপাতত সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়ে হেফাজতে। আর মেয়ে সুকন্যা মণ্ডলের বিরুদ্ধে প্রাথমিক শিক্ষিকার চাকরিতে অনিয়মের অভিযোগ। এ নিয়ে হাইকোর্টে মামলাও হয়েছে।

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) নিচুপট্টির বাড়ি থেকে বেরিয়ে গাড়িতে কলকাতার উদ্দেশে রওনা দিলেন অনুব্রত-কন্যা সুকন্যা মণ্ডল। সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ সুকন্যা কলকাতার উদ্দেশে রওনা হন।

বুধবার বিস্ফোরক অভিযোগ ওঠে কলকাতা হাইকোর্টে। আইনজীবী ফিরদৌস শামিমের করা অভিযোগের ভিত্তিতে আদালতে উঠে আসে ছটি নাম। শুধুমাত্র সুকন্যা মণ্ডল নন, অভিযোগ তার সঙ্গে অনুব্রতর আরও ঘনিষ্ঠ ছজনও চাকরি পেয়েছিলেন অনুব্রতর প্রভাবে।

আর এ ছজনকেই আদালতে হাজিরার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি। তালিকায় রয়েছে কেষ্ট-কন্যা সুকন্যা মণ্ডল। রয়েছেন তার পার্সোনাল অ্যাসিস্টেন্ট অর্ক দত্ত। রয়েছে অনুব্রত ভাই সুমিত মণ্ডলের নামও। এছাড়া তালিকায় রয়েছেন অনুব্রতর ভাইপো সাত্যকি মণ্ডলও। এছাড়া তালিকায় রয়েছে ঘনিষ্ঠ দুজনের নাম। সুজিত বাগদি ও কস্তুরি চৌধুরী নামে ঘনিষ্ঠ দুজনের নামও।

এর আগে এএসএসি মামলায় নাম জড়িয়েছিল প্রাক্তন মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর নাম। তাঁর মেয়ে অঙ্কিতা অধিকারী বেআইনিভাবে চাকরি পেয়েছেন, এ অভিযোগে তুলকালাম শুরু হয়েছিল রাজ্যজুড়ে। শেষ পর্যন্ত আদালতের নির্দেশে চাকরি যায় পরেশ কন্যা অঙ্কিতার। তাকে একটি নির্দিষ্ট সময়ের জরিমানাও করা হয়। সুকন্যারও কি একই পরিণতি হতে চলেছে, প্রশ্ন উঠছে।

এমআইএইচএস/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।