আমিরাতের কাছে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বিক্রি করবে ইসরায়েল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৪৭ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২
প্রতীকী ছবি

সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বিক্রি করতে যাচ্ছে ইসরায়েল। ফলে যেকোনো ধরনের ড্রোন হামলাকে প্রতিহত করতে সক্ষম হবে উপসাগরীয় দেশটি। ধারণা করা হচ্ছে দেশ দুইটির মধ্যে সম্পর্ক ক্রমেই জোরদার হচ্ছে। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

দুইটি সূত্র জানায়, এর আগে রাফায়েলের তৈরি ‘স্পাইডার’ নামের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পাওয়ার জন্য আমিরাত ইসরায়েলের কাছে অনুরোধ জানায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আমিরাতের কাছে বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে ইসরায়েল।

তৃতীয় সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসরায়েলের কাছ থেকে প্রযুক্তি কিনবে আমিরাত যার মাধ্যমে ড্রোন হামলা প্রতিরোধ করা যাবে। চলতি বছরের শুরুর দিকে আবুধাবিতে এ ধরনের হামলা হয়েছিল।

২০ সেপ্টেম্বর দুই দেশের মধ্য যে চুক্তি হয়েছে সে সম্পর্কে জানাতে চাওয়া হয়েছিল ইসরায়েলের পার্লামেন্টের বিদেশ ও প্রতিরক্ষাবিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যানের কাছে। কিন্তু তিনি এ ব্যাপারে কিছু না জানিয়ে বলেন, এটি ইসরায়েল ও আমিরাতের মধ্যে সহযোগিতামূলক পদক্ষেপ ছিল।

সম্প্রতি ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের লক্ষ্য বস্তুতে পরিণত হয়েছে আমিরাত। কারণ দেশটি সৌদি জোটের অন্যতম সক্রিয় সদস্য। মূলত ২০২০ সালে ইসরায়েল ও আমিরাতের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক হয়।

এদিকে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বার্ষিক সভায় অংশ নেওয়ার সময় সাইডলাইন বৈঠক করেছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী ইয়ার লাপিদ ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েব এরদোয়ান। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ২০০৮ সালের পর দু’দেশের নেতাদের এটাই প্রথম সরাসরি বৈঠক বলে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানানো হয়।

ফিলিস্তিনের সঙ্গে ইসরায়েলের দ্বন্দ্বের জেরে তুরস্কের সঙ্গে দেশটির সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছিল। সম্প্রতি দেশ দুটির নেতাদের মধ্যে এক ধরনের সখ্যতা তৈরি হয়েছে। তারা শিগগির নতুন রাষ্ট্রদূত নিয়োগ করবেন বলেও আশা করা হচ্ছে।

এমএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।