ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ নিম্নমুখী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৩৩ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২
সংগৃহীত

ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, ১৬ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়া সপ্তাহে ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৫ দশমিক ২২ বিলিয়ন ডলার কমে ৫৪৫ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দ্য ইকোনমিক টাইমসের এক প্রতিবেদনে তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, একই সময়ে ভারতের ফরেন কারেন্সি অ্যাসেট বা বৈদেশিক মুদ্রার সম্পদ ৪ দশমিক ৭০ বিলিয়ন ডলার কমে ৪৮৪ দশমিক ৯০ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। তাছাড়া স্বর্ণের রিজার্ভ ৪৫৮ মিলিয়ন ডলার কমে ৩৮ দশমিক ১৯ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে।

আইডিএফসি ফার্স্ট ব্যাংক এক পূর্বাভাসে জানিয়েছে, ২০২৩ অর্থ বছরে বাণিজ্য ঘাটতি ৪ শতাংশ বাড়লে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে ৫১০ বিলিয়ন ডলারে নেমে আসতে পারে।

তারপরও পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, বর্তমান রিজার্ভ দিয়ে ভারত আট দশমিক নয় মাসের আমদানি করতে সক্ষম হবে। যা ২০১৩ সালের চার দশমিক এক মাসের চেয়ে অনেক বেশি।

ডয়েচে ব্যাংক সম্প্রতি জানিয়েছে, ভারতের সামগ্রিক বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ এই বছর আরও হ্রাস পাবে। ব্যাপক বাণিজ্য ঘাটতি ও রুপির সমর্থনে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হস্তক্ষেপের কারণেই এমন হতে যাচ্ছে। তাছাড়া চলতি সপ্তাহে ডলারের বিপরীতে ভারতীয় রুপির ব্যাপক দরপতন হয়েছে। গত বছরের এপ্রিলের পর এমন পতন আর দেখা যায়নি।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) এক ডলার দিয়ে ৮০ দশমিক ৪৮৬৩ রুপি পাওয়া যায়। এর আগে মান দাঁড়ায় ৮০ দশমিক ৪৬৭৫ রুপিতে। অর্থাৎ আগের সেশনের চেয়ে রুপি দুর্বল হয়।

মুদ্রা ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, বিদেশি বাজারে মার্কিন মুদ্রার শক্তি, অভ্যন্তরীণ ইক্যুইটির মিউটেড ট্রেন্ড, অর্থনীতিতে ঝুঁকি ও অপরিশোধিত তেলের দামের কারণে ভারতীয় রুপিতে প্রভাব পড়েছে।

এমএসএম

 

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।