ইতালির প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন জর্জিয়া মেলোনি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৭ এএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
সংগৃহীত

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর থেকে ইতালির সবচেয়ে কট্টর ডানপন্থী সরকারের নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত জর্জিয়া মেলোনি। রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রাথমিক ফল অনুযায়ী, নতুন নারী প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে ইতালি।

মেলোনির ব্রাদার্স অব ইতালিসহ মাত্তেও সালভিনির লিগ ও সিলভিও বার্লুসকোনির ফোরজা ইতালিয়া জোট রোববারের নির্বাচনে প্রায় ৪৪ শতাংশ ভোট পেয়েছে। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রাথমিক ফলাফল থেকে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। ব্রাদার্স অব ইতালি প্রায় ২৬ শতাংশ ভোট পেয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। ২০১৮ সালের নির্বাচনে দলটি মাত্র ৪ শতাংশ ভোট পেয়েছিল।

মেলোনির প্রধান মিত্র মাত্তেও সালভিনির দল ৯ শতাংশ ভোট পেয়েছে। গতবারের নির্বাচনে তার দল ‘লিগ ফর সালভিনি প্রিমিয়ার ১৭ শতাংশ ভোট পেয়েছিল। জোটের অপর দল সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও ফুটবল দল এসি মিলানের সাবেক মালিক সিলভিও বার্লুসকোনির ফোরজা ইতালিয়া। এই দলটি ৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে।

নির্বাচনী ফলাফল জানার পর সোমবার রাতেই এক বক্তৃতায় জর্জিয়া মেলোনি বলেন, ‘এটাই দায়িত্ব পালনের সময়। আমাদের যদি সরকার গঠনের জন্য বলা হয়, তবে আমরা ইতালীয়দের জন্য কাজ করবো, আমরা জনগণকে একত্রিত করার লক্ষ্যে কাজ করবো। তিনি আরও বলেন, ব্রাদার্স অব ইতালি দলের সরকার হবে প্রত্যেকের এবং আমরা মানুষের আস্থার সঙ্গে প্রতারণা করবো না’।

রোমে কথা বলার সময় তিনি আরও বলেন, ‘ধন্যবাদ ইতালি’।

জর্জিয়া মেলোনির প্রথম চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে একটি হলো বাজেট পরিকল্পনার খসড়া তৈরি করা। এই খসড়া ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও সংসদে জমা দেওয়া এবং বছরের শেষে তা অনুমোদন করা।

মন্থর গতিতে চলছে ইতালির অর্থনীতি। ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন, জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি এবং ক্রমবর্ধমান সুদের হারসহ বিভিন্ন সংকট মোকাবিলা করতে হবে নতুন এই প্রধানমন্ত্রীকে।

এদিকে, সালভিনি সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, তিনি পুরো পাঁচ বছরের সংসদীয় মেয়াদ স্থায়ী হওয়ার পরবর্তী সরকারের ওপর নির্ভর করছেন। তিনি বলেন, ‘জর্জিয়ার সঙ্গে আমরা দীর্ঘ সময়ের জন্য কাজ করবো।

তিনি আরও বলেন, জ্বালানির দাম বৃদ্ধির কারণে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে রক্ষা করার জন্য একটি জ্বালানি ডিক্রি জরুরি এবং নতুন সরকারের জন্য এটি প্রথম পরীক্ষা’।

সালভিনি পরিবার ও ব্যবসার সুরক্ষার জন্য ৩০ বিলিয়ন ইউরো (২৯ বিলিয়ন) নতুন ঋণের আহ্বান জানিয়েছেন।

অপরদিকে, মেলোনি বলেছেন, এটি একটি শেষ অবলম্বন হবে।

ইতালির প্রধান বিরোধী দলের নেতা এনরিকো লেত্তা সোমবার ঘোষণা করেন যে তিনি রোববারের সাধারণ নির্বাচনে পরাজয়ের পরিপ্রেক্ষিতে পদত্যাগ করবেন। কেন্দ্রীয়-বাম ডেমোক্র্যাটিক পার্টির এই নেতা বলেন, তিনি তার দলের নেতৃত্বে নতুন ম্যান্ডেট চাইবেন না। নতুন নেতা নির্বাচনের জন্য কংগ্রেসকে আহ্বান জানানোর কথাও বলেন তিনি।

মেলোনির জোট বড় ব্যবধানে জয়ী হলেও এবারের নির্বাচনে ভোটারদের উপস্থিতি অনেক কম ছিল।

পরিবার ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির পরিস্থিতি থেকে রক্ষা করতে দেশটি এখন পর্যন্ত ৬৬ বিলিয়ন ইউরো ব্যয় করেছে এবং আরও অনেক কিছুর প্রয়োজন রয়েছে। এর ফলে দেশটির বিশাল ঋণ নিয়ন্ত্রণে রাখা কঠিন হয়ে পড়েছে।

৪৫ বছর বয়সী মেলোনির সরকারি কাজের অভিজ্ঞতা খুব বেশি নয়। এখন জর্জিয়া মেলোনিকে এমন একজন হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করতে হবে যে সত্যিই ইতালির অর্থনীতির উপস্থিত চ্যালেঞ্জগুলো তিনি মোকাবিলা করতে পারবেন। রক্ষণশীল থিঙ্ক ট্যাঙ্ক কিপসেলির মহাপরিচালক ডমেনিকো লোম্বার্ডি বলেন, ‘আমাকে বলতে দিন যে রক্ষণশীল হওয়ার অর্থ আপনার দেশের পাবলিক ফাইন্যান্স সম্পর্কে রক্ষণশীল হওয়া’।

সূত্র: ব্লুমবার্গ, বিবিসি

এসএনআর/টিটিএন 

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।