বিপিন রাওয়াতের জায়গায় নতুন সেনা সর্বাধিনায়কের নাম ঘোষণা ভারতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪২ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২
লেফটেন্যান্ট জেনারেল অনিল চৌহান এবং বিপিন রাওয়াত

নয় মাসের অপেক্ষার অবসান। প্রয়াত বিপিন রাওয়াতের জায়গায় ভারতের পরবর্তী সেনা সর্বাধিনায়ক হচ্ছেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) অনিল চৌহান। প্রায় ৪০ বছর ভারতীয় সেনাবাহিনীর বিভিন্ন পদে কাজ করার পর এবার তিন বাহিনীর সর্বোচ্চ পদে বসছেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল চৌহান। একই সঙ্গে তিনি সেনা সচিব হিসেবেও কাজ করবেন। বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) এক বিবৃতিতে এমনটাই জানিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয়।

গত বছরের ডিসেম্বরে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় জেনারেল রাওয়াতের। তারপর থেকেই ফাঁকা পড়ে ছিল চিফ অব ডিফেন্স স্টাফের পদটি। একটা সময় মনে করা হচ্ছিল সেনা প্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে এই পদটিতে বসতে পারেন। কিন্তু জেনারেল নারাভানেকে টপকে এই পদ পেলেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল অনিল চৌহান।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল চৌহানকে এই গুরুত্বপূর্ণ পদে বসানোর আগে অবশ্য সিডিএস নিয়োগের নিয়মে সংশোধন করতে হয় সরকারকে। আগে দেশটির চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ নিয়োগ করা হতো শুধু কর্মরত লেফটেন্যান্ট জেনারেলদের মধ্যে থেকে। কিন্ত জেনারেল রাওয়াতের প্রয়াণের পর সেই নিয়ম সংশোধন করা হয়।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার জানায়, শুধু কর্মরত লেফটেন্যান্ট জেনারেলরা নন, অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেলরাও এই পদে বসতে পারবেন। শুধু তাদের বয়স ৬২ বছরের কম হতে হবে। সেই নিয়মেই অনিল চৌহান দেশের সেনা সর্বাধিনায়ক হলেন।

জানা গেছে, এই চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ পদটি ভারতের নিরাপত্তার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদ। তিন বাহিনীর মধ্যে সমন্বয়সাধন থেকে শুরু করে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের ভার থাকে সিডিএসের ওপর।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এই গুরুত্বপূর্ণ পদে অনিল চৌধুরীর অভিজ্ঞতাকে গুরুত্ব দিতে চাইছে প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয়। লেফটেন্যান্ট জেনারেল চৌহান প্রায় ৪০ বছর ধরে সেনার সঙ্গে যুক্ত। কাশ্মীরে অনুপ্রবেশ বন্ধের ক্ষেত্রে তার বিশেষ অভিজ্ঞতা আছে। সেনার বিভিন্ন কম্যান্ডের দায়িত্বও তিনি সামলেছেন। সেই অভিজ্ঞতাকেই পুঁজি করতে চায় ভারত।

এমএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।