ইউক্রেনের অধিকৃত জাপোরঝিয়ায় রাশিয়ার হামলা, নিহত ২৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:৫০ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
সংগৃহীত

ইউক্রেনের অধিকৃত জাপোরঝিয়ায় রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ২৩ জন নিহত ও ২৮ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। একটি আশ্রয় শিবিরকে লক্ষ্য করে এ হামলা বলে দাবি করেছেন জাপোরিঝিয়া আঞ্চলিক গভর্নর ওলেক্সান্ডার স্টারুখ।

ওলেক্সান্ডার স্টারুখ টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপে লিখেছেন ‘এখন পর্যন্ত ২৩ জন নিহত এবং ২৮ জন আহত হয়েছে। তারা সবাই বেসামরিক লোক’।

স্টারুখ পোড়া গাড়ি ও রাস্তায় পড়ে থাকা লাশের ছবি পোস্ট করেছেন। তিনি বলেন, আত্মীয়দের নিরাপদে নিয়ে যাওয়ার জন্য সেখানে ছিলেন তারা।

অপরদিকে, এক রুশ কর্মকর্তা জাপোরিঝিয়ায় ভয়াবহ হামলার জন্য ইউক্রেনের সেনাবাহিনীকে দায়ী করেছেন।

ইউক্রেনের অধিকৃত অঞ্চলটিতে ক্রেমলিনের এক সমর্থক বলেন, বেসামরিক লোকদের ওপর এ হামলা চালিয়েছে কিয়েভ বাহিনী, যেখানে ২৩ জন নিহত হন। তিনি এই হামলার জন্য রাশিয়ার জড়িত থাকার বিষয়টিও প্রত্যাখ্যান করেন।

এই অঞ্চলের রাশিয়ান-সমর্থিত প্রশাসনের কর্মকর্তা, ভ্লাদিমির রোগভ টেলিগ্রামে বলেছেন, ‘কিয়েভ রাশিয়ান সেনাদের ওপর হামলা করছে। তারা একটি জঘন্য উস্কানির আশ্রয় নিয়েছে’।

তিনি দাবি করে বলেন, ‘ইউক্রেনীয় যোদ্ধারা আরেকটি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করেছে’।

রাশিয়া-সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী ও মস্কোর নিয়ন্ত্রণে থাকা ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলে গণভোট শেষে বিজয় ঘোষণা করেছে রাশিয়া। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই অঞ্চলগুলোকে নিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন। ক্রেমলিনে একটি অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেবেন প্রেসিডেন্ট পুতিন। বৃহস্পতিবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া এবং খেরসন অঞ্চলকে ‘স্বাধীন’ ঘোষণা করেন। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্ট পুতিন একটি ডিক্রি জারি করেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘আমি দক্ষিণ ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া ও খেরসনের রাষ্ট্রীয় সার্বভৌমত্ব এবং স্বাধীনতার স্বীকৃতির আদেশ দিচ্ছি’।

সূত্র: আল-জাজিরা

এসএনআর

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।