বোমাতঙ্ক: ট্রেনে ফেলে যাওয়া গয়নাভর্তি ব্যাগ ছুঁয়ে দেখলো না কেউ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:৫৪ পিএম, ০৫ অক্টোবর ২০২২
প্রতীকী ছবি

ট্রেনের ভেতর ভুল করে গয়নাভর্তি ব্যাগ ফেলে গিয়েছিলেন দুই যাত্রী। তারা নেমে যাওয়ার পর পড়ে থাকা ব্যাগের মালিকের খোঁজ না পেয়ে অন্য যাত্রীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক। ব্যাগে বোমা রয়েছে ভেবে সেটি কেউ ছুঁয়ে দেখারও সাহস করেননি। অবশেষে হাত লাগায় পুলিশ। আর তাদের সাহায্যেই গয়নাসহ ব্যাগটি ফেরত পেয়েছেন এর আসল মালিক। সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে।

স্থানীয় রেল পুলিশ জানিয়েছে, চিকিৎসক প্রবীর বাগ ও তার স্ত্রী সীমা বিশ্বাস গত মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) দুপুরে নৈহাটি থেকে গেদে লোকাল ট্রেনে চড়ে চাকদহের বাড়িতে ফিরছিলেন। অতিরিক্ত ভিড় থাকায় তারা ভেন্ডার কামরায় উঠতে বাধ্য হন। চাকদহ স্টেশনে পৌঁছানোর পর দু’জনই নেমে যান। কিন্তু ভুলে যান সঙ্গে থাকা ব্যাগটি নিতে। তার মধ্যেই ছিল মূল্যবান গয়নাগাটি।

পরে অন্য যাত্রীরা দেখেন, ট্রেনে পড়ে রয়েছে মালিকবিহীন একটি ব্যাগ। পূজার মৌসুমে নাশকতার ছকে কেউ তা রেখে গেছে ভেবে হইচই শুরু করেন যাত্রীরা। আতঙ্কে অনেকেই অন্য কামরায় চলে যান।

গেদে পৌঁছানোর পর যাত্রীদের অভিযোগে ব্যাগটি নামিয়ে নেয় রেল পুলিশ। ব্যাগ খুলে তারা দেখতে পায়, এর ভেতরে দু’টি সোনার হার, দুল, আংটি, সোনায় মোড়া শাখা, পলা, স্মার্টফোনসহ নানা জিনিস রয়েছে। পুলিশের দাবি, ব্যাগে অন্তত সাড়ে সাত লাখ রুপি সমমূল্যের সামগ্রী ছিল।

এদিকে, হারানো ব্যাগের কথা মনে পড়তেই ছোটাছুটি শুরু করেন প্রবীর বাগ ও সীমা বিশ্বাস। প্রবীর কোচবিহারের মাথাভাঙা হাসপাতালের চিকিৎসক এবং তার স্ত্রী কালনা হাসপাতালের নার্স। দু’জনে নবমীর দিন দুপুরে নৈহাটি থেকে লোকাল ট্রেনে চড়েন। কিন্তু নামার সময় ব্যাগটি ফেলে আসেন।

সব কাগজপত্র খতিয়ে দেখে তাদের সব মালামালসহ ব্যাগটি ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেল পুলিশের (গেদে) ডিএসপি নরেন্দ্রনাথ দত্ত।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন
কেএএ/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।