উত্তেজনার মধ্যে নতুন করে সামরিক মহড়া শুরু যুক্তরাষ্ট্র-দ. কোরিয়ার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:০২ পিএম, ০৭ অক্টোবর ২০২২
সংগৃহীত

উত্তর কোরিয়ার ধারাবাহিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের জেরে আবারও যৌথ সামরিক মহড়া শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া। এতে দক্ষিণ কোরিয়ার যুদ্ধজাহাজের সঙ্গে পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম মার্কিন রণতরী ইএসএস রোনাল্ড রিগান অংশ নিয়েছে। এর আগে জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার উপকূলে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। খবর আল-জাজিরার।

দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মার্কিন যুদ্ধজাহাজটি কোরিয়া উপদ্বীপে ফিরে এসেছে ও শুক্রবার (৭ অক্টোবর) থেকে দুইদিনের সামরিকত মহড়া শুরু করেছে। দেশ দুইটির প্রতিরক্ষা সক্ষমতা বাড়ানোর লক্ষ্যেই এই মহড়ার আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, উত্তর কোরিয়ার উসকানির জবাব ও অপারেশনাল সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য আমারা সামরিক মহড়া চালিয়ে যাবো।

বৃহস্পতিবারও (৬ অক্টোবর) উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে। এনিয়ে দুই সপ্তাহের মধ্যে ষষ্ঠবারের মতো ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে দেশটি। জাপানের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়ার এই আচরণ কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। আর উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্র যে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে, তাও গ্রহণযোগ্য নয়।

জানা গেছে, ২২ মিনিটের ব্যবধানে দুইটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ে উত্তর কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাপ্রধান জানিয়েছেন, প্রথম ক্ষেপণাস্ত্রটি ৩৫০ কিলোমিটার ও দ্বিতীয়টি ৯০০ কিলমিটার দূরে গিয়ে সমুদ্রে পড়ে।

এই দুই ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার পর যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ করেছে, উত্তর কোরিয়াকে সাহায্য করছে রাশিয়া ও চীন।

বৃহস্পতিবার সিওল ও টোকিও জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়া যে দুইটি ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে, তা স্বল্পদূরত্বের। এর আগে মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়া মাঝারি পাল্লার ব্যালেস্টিক ক্ষেণাস্ত্র ছোঁড়ে, যা জাপান ছাড়িয়ে সমুদ্রে গিয়ে পড়ে।

এমএসএম

 

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।