যে ঘটনায় কাছাকাছি এলো ব্রাজিল-ফিলিস্তিন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:১৯ এএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২
ছবি: সংগৃহীত

কাতার বিশ্বকাপে সার্বিয়ার বিপক্ষে প্রিয় দল ব্রাজিলের খেলা দেখে অন্য সব দর্শকের মতোই স্টেডিয়াম ছাড়ছিলেন হুসাম সাফারিনি। এসময় ছোট্ট একটি ঘটনা ঘটে, যা এ ফিলিস্তিনি-জর্ডানিয়ান ভক্তকে রীতিমতো স্বপ্নের দুনিয়ায় পৌঁছে দিয়েছে! খোদ ব্রাজিলিয়ান কোচ তাকে ক্যাম্পে ডেকেছেন, উপহার দিয়েছেন ফুটবলারদের অটোগ্রাফযুক্ত একটি জার্সিও। কিন্তু কী ছিল সেই ঘটনা?

গত ২৪ নভেম্বরের ম্যাচে সার্বিয়াকে ২-০ গোলে হারায় সেলেকাওরা। খেলা শেষ হলে হাজার হাজার দর্শকের সঙ্গে স্টেডিয়াম ছেড়ে দোহা মেট্রো স্টেশনের দিকে যাচ্ছিলেন হুসাম। এসময় তিনি একটি ঘুমন্ত শিশুকে কোলে নিয়ে স্টেডিয়াম থেকে বের হতে এক নারীকে সাহায্য করেন। পরে দেখা যায়, ওই শিশুটি ছিল ব্রাজিলিয়ান কোচ অ্যাডেনর লিওনার্দো বাচ্চি বা তিতের নাতি।

ঘুমন্ত শিশুটিকে আদরের সঙ্গে কোলে নিয়ে ফিলিস্তিনি পতাকা পিঠে থাকা হুসাম ধীরে ধীরে স্টেডিয়াম থেকে বের হচ্ছেন, এমন একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এটি হাজার হাজার মানুষের মতো নাড়া দেয় তিতেকেও। ব্রাজিলিয়ান কোচ জানান, এমন মানবিক আচরণ দেখানো লোকটিকে তিনি ব্যক্তিগতভাবে ধন্যবাদ দিতে চান।

তিতে বলেন, ফুটবল আমাদের অনেক সুন্দর সুন্দর জিনিস দেয়। আমি তার সঙ্গে দেখা করতে চাই। কারণ সে একাত্মতার অনুভূতি দেখিয়েছিল, যা ফুটবলকেও ছাড়িয়ে যায়।

এরপর প্রায় এক সপ্তাহ খোঁজাখুঁজির পর হুসাম সাফারিনির সন্ধান পাওয়া যায় এবং তাকে ব্রাজিল টিমের ক্যাম্পে আমন্ত্রণ জানানো হয়। এর ধারাবাহিকতায় হুসাম ব্রাজিলের জাতীয় দলের প্রশিক্ষণ দেখার সুযোগ পান। শেষে তাকে একটি একটি অটোগ্রাফযুক্ত ব্রাজিলিয়ান জার্সি উপহার দেন তিতে।

আবেগ্লাপুত হুসাম তখন ব্রাজিলিয়ান কোচকে বলেন, এটি আমার কাছে সব। এই জিনিস আমি কিনতে পারবো না।

হুসামের এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দ্রুত ভাইরাল হয়। সেখানে তার মহানুভবতার প্রশংসা করে মন্তব্য করেছেন বহু মানুষ। এর মাধ্যমে তিনি ফিলিস্তিনি ও আরবদের বিষয়ে চমৎকার উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন বলে মনে করছেন অনেকে।

টুইটারে একজন বলেছেন, বিশ্বকাপের আগে অনেকেরই আরব বিশ্ব সম্পর্কে ভুল ধারণা ছিল। কিন্তু এখন তারা যা দেখছে তাতে অবাক হচ্ছেন।

আরব দেশগুলোর মধ্যে প্রথমবারের মতো ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজন করেছে কাতার। এটি এ অঞ্চলের মুসলিম সংস্কৃতিকে গোটা বিশ্বের সামনে তুলে ধরার দারুণ সুযোগ সৃষ্টি করেছে। এরই মধ্যে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য মুহূর্তও দেখা গেছে বিশ্বকাপ ঘিরে। যেমন- আরব-ব্রাজিলিয়ানদের মধ্যে নাচের প্রতিযোগিতা, উরুগুয়ের এক ভক্ত ‘ফ্রি প্যালেস্টাইন’ শার্ট পরাসহ আরও অনেক কিছু।

সূত্র: মিডল ইস্ট আই
কেএএ/

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।