‘পদ্মভূষণ’ পেলেন গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৫ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২
সুন্দর পিচাইয়ের হাতে পদ্মভূষণ পদক তুলে দেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত তরণজিৎ সিং সান্ধু/ ছবি: সংগৃহীত

ভারতের তৃতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদ্মভূষণ পেয়েছেন ইন্টারনেট সার্চ ইঞ্জিন গুগল ও সফটওয়্যার কোম্পানি অ্যালফাবেটের প্রধান নির্বাহী (সিইও) সুন্দর পিচাই। স্থানীয় সময় শুক্রবার (২ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের স্যান ফ্রান্সিসকো শহরে তার হাতে এ সম্মাননা পদক তুলে দেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত তরণজিৎ সিং সান্ধু।

আগামী বছরের ২৬ জানুয়ারি ৭৩তম প্রজাতন্ত্র দিবস উদযাপন করবে ভারত। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেওয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়, আসন্ন প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে সুন্দর পিচাইকে এ সম্মাননা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

শুক্রবার পদ্মভূষণ পদক দেওয়ার ছবি টুইট করে সান্ধু লেখেন, সান ফ্রান্সিসকোতে সুন্দর পিচাইকে পদ্মভূষণ হস্তান্তর করতে পেরে আমরা আনন্দিত। তার অনুপ্রেরণামূলক কর্মকাণ্ড ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক ও প্রযুক্তিগত সম্পর্ককে শক্তিশালী করেছে। তিনি ভারতীয় তরুণদের উদ্ভাবনী ক্ষমতা সারাবিশ্বের কাছে তুলে ধরেছেন।

পদ্মভূষণ পাওয়ার পর নিজের ব্লগে সুন্দর পিচাই লেখেন, ভারত সরকারের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত তরণজিৎ সিং সান্ধু ও কনসাল জেনারেল প্রসাদ আমার হাতে পদ্মভূষণ পদক তুলে দিয়েছেন। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই।

‘এমন অসাধারণ সম্মান দেওয়ায় আমি ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার ও জনগণের প্রতি ভীষণভাবে কৃতজ্ঞ। এ অর্জন আমাকে সামনে আরও ভালো কিছু করার প্রেরণা যোগাবে। আমি ভারতে জন্ম নিয়েছি। এ দেশ আমার অস্তিত্বের অংশ। আমি যেখানেই যাই, সেখানেই সবসময় ভারত আমার মনের মধ্যে গেঁথে থাকে।

এদিকে, পদ্মভূষণ পাওয়ার পর মা-বাবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে গুগুলের সিইও লেখেন, আমি আসলেই অনেক ভাগ্যবান। কারণ, আমি এমন একটি পরিবারে জন্মেছি যেখানে শিক্ষার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হতো। আমার সফলতার জন্য আমার মা-বাবাকে অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে।

সুন্দর পিচাই ওরফে পিচাই সুন্দর রাজনের জন্ম ১৯৭২ সালের ১২ জুলাই ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের মাদুরাই শহরে।

খড়্গপুর আইআইটি থেকে স্নাতক পাস করার পর ২০০৪ সালে পিচাই গুগলে যোগদান করেন। প্রথমে তিনি গুগলের ক্লায়েন্ট সফটওয়্যার, প্রোডাক্ট ম্যানেজমেন্টে নেতৃত্ব দেন। কাজ করেন গুগল ক্রোমেও।

পরবর্তী সময়ে তিনি ক্রোম অপারেটিং সিস্টেমের পাশাপাশি গুগল ড্রাইভেও কাজ করেন। তাছাড়া জিমেইল ও গুগল মানচিত্রের মতো বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশনের উন্নয়নও তত্ত্বাবধান করেন সুন্দর পিচাই।

২০১৪ সালে মাইক্রোসফটের সিইও হওয়ার জন্য পিচাইকে প্রস্তাব করা হয়, যা পরবর্তীতে সত্য নাদেলাকে দেওয়া হয়। ২০১৫ সালের ১০ আগস্ট সুন্দর পিচাইকে গুগলের পরবর্তী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে তিনি ওয়েব সার্চ জায়ান্টের অভিভাবক সংস্থা অ্যালফাবেটেরও সিইও পদে অভিষিক্ত হন।

সূত্র: এনডিটিভি

এসএএইচ

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।