সভাপতির পদ নেই সংসদ সদস্য সানোয়ারের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৯ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৮

টাঙ্গাইল-৫ আসনের সংসদ সদস্য মো. সানোয়ার হোসেন স্থানীয় দারুল উলুম মাদরাসার সভাপতি পদকে অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে আপিল (আপিলের অনুমতি) আবেদন খারিজ করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে সংসদ সদস্য সানোয়ার ওই মাদরাসার কমিটিতে সভাপতি পদে থাকতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

রোববার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে সংসদ সদস্য সানোয়ার হোসেন ও মাদরাসার পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রেহান হোসেন। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার এম আশরাফুল ইসলাম। অন্যদিকে রিটকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শ ম রেজাউল করিম।

পরে ব্যারিস্টার আশরাফুল ইসলাম আদালতের আদেশের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, আদালতে আমরা হেরে যাই। এর পরেও আপিল বিভাগের আদেশের পর আদালতের বাইরে বেরিয়ে রিটকারী কুদরত ইলাহী আমাকে এক সপ্তাহের মধ্যে দেখে নেবে বলে হুমকি দিয়েছেন।

হুমকি দিয়ে বলে, আমি কত বড় আইনজীবী হয়েছি তা দেখে নেবে বলেও চোখ রাঙান। পরে এ বিষয়টি আমি আমার সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার রেহান হোসেনের মাধ্যমে দায়িত্বরত প্রধান বিচারপতিকে অবহিত করি। পরে দায়িত্বরত প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘বিষয়টি আমরা দেখছি।’

তবে এ বিষয়ে কুদরত ইলাহীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি মামলায় জয়লাভ করেছি। তারা হেরে গেছে তাই মাথা ঠিক নেই। এখন আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করছে। আমি কাউকে কোনো হুমকি দেইনি।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ৮ আগস্ট টাঙ্গাইল-৫ আসনের সংসদ সদস্য মো. সানোয়ার হোসেনকে দারুল উলুম মাদরাসার সভাপতি মনোনীত করাকে চ্যালেঞ্জ করে আমির কুদরত ইলাহী খান নামে মাদরাসা কমিটির এক সদস্য হাইকোর্টে রিট করেন।

এরপর গত ২৫ অক্টোবর হাইকোর্ট টাঙ্গাইল দারুল উলুম মাদরাসায় ওই সংসদ সদস্যকে সভাপতি মনোনীত করাকে অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন।

রায়ের পর সংসদ সদস্য সানোয়ার হোসেন মাদরাসার পক্ষে লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) করেন। কিন্তু আবেদন শুনানি নিয়ে আপিল বিভাগ খারিজ করে দেন।

এফএইচ/এমআরএম/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :