মিথ্যা মামলায় নেত্রীকে সাজা দেয়া হয়েছে : মওদুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:১১ পিএম, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

 

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বেআইনি ও অন্যায়ভাবে সাজা দেয়ার প্রতিবাদ ও তার মুক্তির দাবিতে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের উদ্যোগে প্রতীকী অনশন করেছেন আইনজীবীরা।

বুধবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির (বার) ভবনের চত্বরে শতাধিক আইনজীবী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এ প্রতীকী অনশনে অংশ নেন।

পরে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদকে পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙান সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল।

মওদুদ আহমদ বলেন, একটি ভুয়া, বানোয়াট ও মিথ্যা মামলায় আমাদের নেত্রীকে সাজা দেয়া হয়েছে। কোনো সাক্ষ্য প্রমাণ ছাড়া এ মামলায় রায় দেয়া হয়েছে। জালজালিয়াতি করে কোনো রকম কাগজপত্র তৈরি করে বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হযেছে। এর বিরুদ্ধে আমরা অবশ্যই আপিল করব।

তিনি বলেন, আজ সাত দিন হয়ে গেলেও রাষ্ট্রযন্ত্রের কারণে আমরা এখনও রায়ের কপি পায়নি। রায় দেয়ার দিন সার্টিফাইড কপি পাওয়ার জন্য আবেদন করেছি, তারপর রবি, সোম, মঙ্গলবার রায়ের কপি দেয়ার কথা বলা হলেও দেয়া হয়নি। এটা সরকারের কৌশল যতদিন পারে খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে কষ্ট দেয়া। তিনি যাতে মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েন সেজন্য দীর্ঘদিন জেলে রাখার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। কিন্তু আমাদের নেত্রী দুর্বল হবেন না। আদালতের মাধ্যমে আমরা তাকে মুক্ত করে আনব।

মওদুদ আহমেদ বলেন, যতদিন খালেদা জিয়া মুক্তি না পাবেন, নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি না হবে আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব। দেশের ৮০ ভাগ মানুষ অপেক্ষায় আছে ভোট দেয়ার জন্য। আমরা শিগগিরই ওনাকে মুক্ত করে মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনব।

আইনজীবী তৈমুর আলম খন্দকারের সভাপতিত্বে প্রতীকী অনশন কর্মসূচিতে অংশ নেন আইনজীবী ফজলুর রহমান, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন, সাবেক সম্পাদক বদরুদ্দোজা বাদল, সহ-সভাপতি উম্মে কুলসুম রেখা, খালেদা পান্না, মাওলানা আবদুর রকিব, রুহুল কুদ্দুস কাজল, গাজী কামরুল ইসলাম সজল, মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দীন, শামীমা সুলতানা দিপ্তী, মতিলাল ব্যাপারী, মির্জা আল মাহমুদ প্রমুখ।

এফএইচ/জেএইচ/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :