মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে মতামত দেবেন অ্যাটর্নি জেনারেল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৩০ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৮
ফাইল ছবি

মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে মতামত দেবেন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল। সোমবার (২০ আগস্ট) এ মতামত দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে।

অ্যাটর্নি জেনারেল জানিয়েছেন, ‘আমি দুই তিনদিন আগে চিঠি পেয়েছি। চিঠিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে আমার মতামত চাওয়া হয়েছে। আগামী সোমবারের মধ্যে আমার মতামত দেব।’

এর আগে সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা ৩০ শতাংশ রাখার বাধ্যবাধকতা নিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের কাছে মতামত চায় এ সংক্রান্ত কমিটি।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ড. জাকির হোসেন ও স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান জানিয়েছেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন এখনও এ ধরনের চিঠি পাননি।

এর আগে গত ১২ আগস্ট মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান, সরকারি চাকরিতে মেধাকে প্রাধান্য দিয়ে কোটা প্রথা যতটা সম্ভব তুলে দেয়ার সুপারিশ করছে এ সংক্রান্ত গঠিত কমিটি। তবে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটার ব্যাপারে আদালতের রায় থাকায় সুপ্রিম কোর্টের মতামত চাইবে সরকার।

শফিউল আলম জানান, আমরা মাসখানেক কাজ করলাম। সুপারিশ প্রায় চূড়ান্ত। কমিটির মোটামুটি সুপারিশ হলো— কোটা অলমোস্ট উঠিয়ে দেয়া, মেধাকে প্রাধান্য দেয়া। তবে সুপ্রিম কোর্টের একটা রায় আছে, মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা প্রতিপালন ও সংরক্ষণ করতে হবে এবং যদি খালি থাকে তা খালি রাখতে হবে।

এ কারণে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের জন্য বর্তমানে থাকা ৩০ শতাংশ কোটার বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের কাছে মতামত চাইবে সরকার। মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা সংরক্ষণ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের পর্যবেক্ষণ এ সংক্রান্ত কমিটি পুরোপুরি বুঝতে না পারার কারণেই আদালতের মতামত চাওয়া হবে। যদি কোর্ট এটাকেও বাদ দিয়ে দেয় তাহলে কোটা থাকবে না। আর কোর্ট যদি বলে ওই অংশটুকু সংরক্ষিত রাখতে হবে, তাহলে ওই অংশটুকু (মুক্তিযোদ্ধা কোটা) বাদ দিয়ে বাকি সব উন্মুক্ত করা হবে। অর্থাৎ আদালত যে মতামত দেয় সেটাই প্রাধান্য পাবে।

এদিকে কোটা ব্যবস্থার সংস্কারের দাবিতে গত কয়েক মাস ধরে আন্দোলন করছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক অবরোধ, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ এবং আন্দোলনকারীদের গ্রেফতারের ঘটনাও ঘটেছে।

এফএইচ/এএইচ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :