মেডিয়েশনই মামলাজট নিরসনের পথ : বিচারপতি আহমেদ সোহেল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪১ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি আহমেদ সোহেল বলেছেন, মেডিয়েশন এবং আরবিট্রেশনই মামলাজট নিরসনের একমাত্র পথ।

বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানির এক হোটেলে ‘ডেফিনেশন অব মেডিয়েশন’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল মেডিয়েশন সোসাইটির (বিমস) প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডভোকেট সমরেন্দ্র নাথ গোস্বামী ও ভারতের সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাক্রিডিটেড মেডিয়েটর ইরাম মজিদ যৌথভাবে বইটি লিখেছেন।

এর আগে বিমসের দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিকমানের বিশেষ প্রশিক্ষণ কর্মশালারও উদ্ধোধন করেন বিচারপতি আহমেদ সোহেল।

প্রধান অতিথির বক্তেব্য তিনি বলেন, ‘আইনমন্ত্রী সংসদে জানিয়েছেন বর্তমানে দেশে ৩০ লাখের অধিক মামলা বিচারাধীন রয়েছে। তাই এ মামলাজট নিরসনে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি পদ্ধতি, মেডিয়েশন এবং আরবিট্রেশনের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। মেডিয়েশন এবং আরবিট্রেশনই মামলাজট নিরসনের একমাত্র পথ।’

তিনি আরও বলেন, ‘পৃথিবীর সর্বত্র মামলাজট নিরসন এবং দ্রুত ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় মেডিয়েশন পদ্ধতি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছে। তারই আলোকে বাংলাদেশেও মামলাজট নিরসনে মেডিয়েশন-আরবিট্রেশনকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দিতে গবেষণার ব্যবস্থা এবং উচ্চতর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণে সরকারের প্রতি অনুরোধ জানায়।’

তিনি জানান, ভারতে বিচার ব্যবস্থায় মেডিয়েশন-আরবিট্রেশন পদ্ধতি সফলভাবে প্রয়োগ করে সুফল মিলেছে।

দেশের বিচার ব্যবস্থায় মেডিয়েশন আন্দোলনকে ছড়িয়ে দিতে ভূমিকা পালন করায় এবং আন্তর্জাতিক মানের মেডিয়েশন একাডেমি প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেয়ায় বিমসের প্রতিষ্ঠাতা এস এন গোস্বামীকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বিমসের প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডভোকেট সমরেন্দ্র নাথ গোস্বামীর সভাপতিত্বে চাটার্ড ইনস্টিটিউট অব আরবিট্রেটর্সের (ইউকে) কোর্স ডিরেক্টর মি. ইনবাভিজান, আন্তর্জাতিক মেডিয়েটর কে এস শর্মা এবং বিমসের রিজওনাল ডিরেক্টর অ্যাক্রিডিটেড মেডিয়েটর ইরাম মজিদ, বিমসের সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট হরিদাস পাল, মূখপাত্র অ্যাডভোকেট মো. আলমগীর হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

এফএইচ/এএইচ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :