মিশুক মুনীরের পরিবারের ক্ষতিপূরণ : পরবর্তী শুনানি ২৯ জানুয়ারি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩০ পিএম, ০৯ জানুয়ারি ২০১৯
ফাইল ছবি

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এটিএন নিউজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মিশুক মুনীরের পরিবারের ক্ষতিপূরণ চেয়ে করা মামলার এজাহারকারী মো. লুৎফুর রহমানের জেরার জন্য আগামী ২৯ জানুয়ারি পরর্বতী দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

এজাহারকারীর আংশিক জেরা শেষে বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে বাদীপক্ষে এজাহারকারীর সাক্ষ্যগ্রহণ করেন আইনজীবী রমজান আলী সিকদার। তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদের পক্ষে শুনানি করেন ড. কামাল হোসেন ও ব্লাস্টের নির্বাহী পরিচালক ব্যারিস্টার সারা হোসেন। অন্যদিকে মামলার বিবাদী বাস মালিক ও চালকের পক্ষে সাক্ষীকে আংশিক জেরা করেন আইনজীবী আব্দুস সোবহান তরফদার। এ ছাড়াও রিলায়েন্স ইনস্যুরেন্স কোম্পানির পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার ইমরান এ সিদ্দিকী ও ব্যারিস্টার ইহসান এ সিদ্দিকী।

মামলা সম্পর্কে বাদীপক্ষের আইনজীবী রমজান আলী সিকদার সাংবাদিকদের বলেন, ‘এ মামলায় এ পর্যন্ত ৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। তবে আজকের সাক্ষীর জেরা আংশিক সম্পন্ন হয়েছে। আমরা এ মামলায় আরও একজন সাক্ষী উপস্থাপন করব। তারপর মামলাটির ওপর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করা হবে।’

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার জোকা এলাকায় ২০১১ সালের ১৩ অগাস্ট ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে দুর্ঘটনায় নিহত হন চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ এবং এটিএন নিউজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মিশুক মুনীর।

তারেক ও মিশুককে বহনকারী মাইক্রোবাসটির সঙ্গে চুয়াডাঙ্গাগামী বাসের সংঘর্ষে মোট ৫ জন নিহত হন। পরে এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করে।

ওই ঘটনার প্রায় দেড় বছর পর ২০১৩ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নিহতদের পরিবারের সদস্যরা মানিকগঞ্জে মোটরযান অর্ডিন্যান্সে ১২৮ ধারায় বাস মালিক, চালক ও ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরণ চেয়ে দুটি মামলা করেন।

মামলায় তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদ প্রথমে সাত কোটি ৭৬ লাখ ২৫ হাজার ৪৫২ টাকা আর্থিক ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। পরে ক্ষতিপূরণের দাবি বাড়িয়ে প্রায় ১০ কোটি টাকা করা হয়।

এরপর সংবিধানের ১১০ অনুচ্ছেদ অনুসারে মামলা দুটি জনস্বার্থে হাইকোর্টে বদলির নির্দেশনা চেয়ে আবেদন করেন বাদীরা।

শুনানি শেষে ২০১৭ সালের ৩ ডিসেম্বর হাইকোর্ট তার রায়ে চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদের মৃত্যুর ঘটনায় তার পরিবারকে ৪ কোটি ৬১ লাখ ৪৫২ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে তিন মাসের মধ্যে মাস মালিক, চালক ও সংশ্লিষ্ট ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীকে এ টাকা পরিশোধ করতে বলেন।

হাইকোর্টের বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি কাজী ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন। এরপর রায়ের লিখিত কপি বিচারপতিদের স্বাক্ষরের পর প্রকাশিত হলেও চুয়াডাঙ্গা বাস মালিকদের একটি আপিল আবেদন শুনানির অপেক্ষায় থাকায় ক্ষতিপূরণ পাওয়ার সম্ভাবনা আটকে যায়।

এদিকে ওই একই দুর্ঘটনায় চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ নিহতের ঘটনায় ক্ষতিপূরণ মামলার নিষ্পত্তির পর এটিএন নিউজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মিশুক মুনীরের নিহতের ঘটনায় করা ক্ষতিপূরণ মামলায় বিচার কাজ শুরু করেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের বেঞ্চে এ মামলার শুনানি শুরু হয়। কিন্তু বিচারপতি জিনাত আরা হাইকোর্ট থেকে আপিল বিভাগে নিয়োগ পেলে মামলাটি শুনানির জন্য বিচারপতি জে বি এম হাসানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে পাঠানো হলে সেখানে শুনানি শুরু হয়।

এফএইচ/এনডিএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :