প্রথম দিনে ভোট দিলেন সুপ্রিমকোর্টের ২৯৭০জন আইনজীবী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:২৯ পিএম, ১৩ মার্চ ২০১৯

দেশের আইনজীবীদের অন্যতম সংগঠন সুপ্রিম কোর্ট বার সমিতির নির্বাচনের দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণের প্রথম দিনে বুধবার (১৩ মার্চ) ভোট কাস্ট হয়েছে ২৯৭০টি। সকাল ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সমিতির শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে এ ভোটগ্রহণ করা হয়। মোট ৪৪টি বুথে একযোগে আইনজীবীরা তাদের ভোট প্রদান করেন।

দুপুরে এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও ভোটারদের লাইন শেষ না হওয়ায় ৩০ মিনিট সময় বাড়ানো হয় বলে জাগো নিউজকে জানান নির্বাচন পরিচালনা কমিটির অন্যতম সদস্য ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সিনিয়র সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট কাজী জয়নাল আবেদীন।

প্রথম দিন দুই হাজার ৯৭০জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন বলেও জানান তিনি।

আগামীকাল সকাল ১০টা থেকে দ্বিতীয় দিনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এরপর ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

নির্বাচন পরিচালনা কমিটির অন্যতম সদস্য ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সিনিয়র সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট কাজী জয়নাল আবেদীন বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণভাবে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির দুইদিনব্যাপী নির্বাচনের প্রথম দিনের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। নির্বাচন নিয়ে কোনো ধরনের অভিযোগে আসেনি।

সুপ্রিম কোর্ট বারের সুপারিনটেনডেন্ট (তত্ত্বাবধায়ক) নিমেষ চন্দ্র দাস জাগো নিউজকে বলেন, এবারের নির্বাচনে মোট ৭ হাজার ৮২৫ জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

প্রতি বছর সুপ্রিম কোর্ট বারের কার্যনির্বাহী কমিটির ১৪টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ৭টি সম্পাদকীয় ও ৭টি নির্বাহী সদস্যের পদ রয়েছে। এবারের নির্বাচনে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল ঘোষণা করেছে সরকার সমর্থিত সাদা প্যানেল এবং বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেল। এ ছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সভাপতি পদে দু’জন এবং সদস্য পদের জন্য একজনসহ মোট ৩৩ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সভাপতি পদে সমিতির সাবেক সম্পাদক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন (এ এম আমিন উদ্দিন) ও সম্পাদক পদে বাংলাদেশ আইন সমিতির সাবেক সম্পাদক আইনজীবী আবদুন নুর দুলালের নেতৃত্বে সাদা প্যানেল থেকে ১৪ জনের পূর্ণাঙ্গ প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

অপরদিকে বারের সাবেক সভাপতি ও সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট আব্দুল জামিল (এ জে) মোহাম্মদ আলী এবং সম্পাদক পদে টানা ছয়বারের সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহাবুব উদ্দিন খোকনের নেতৃত্বে নীল প্যানেলে ১৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সুপ্রিম কোর্ট বারের সুপারিনটেনডেন্ট (তত্ত্বাবধায়ক) নিমেষ চন্দ্র দাস জানান, এবারের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক এ ওয়াই মশিউজ্জামান। তার নেতৃত্বে একটি সাব-কমিটি দায়িত্ব পালন করছে। ইতোমধ্যেই ভোটগ্রহণের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমার দিন ধার্য ছিল। মনোনয়ন প্রত্যাহার প্রক্রিয়া শেষে এখন চূড়ান্তভাবে ৩৩ জন প্রার্থী রয়েছেন। আজ (১৩ মার্চ) এবং আগামীকাল (১৪ মার্চ) সকাল ১০টা থেকে মাঝে ১ ঘণ্টা বিরতি দিয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। এরপর গণনা শেষে ফল ঘোষণা করা হবে।

এবার হারানো ইমেজ পুনরুদ্ধার করতে আপ্রাণ চেষ্টা করছে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ ও তাদের মিত্ররা। অপরদিকে বিএনপি-জামায়াতের প্রার্থীরা নিজেদের অবস্থান ধরে রাখতে মরিয়া।

এদিকে ভোটের আগেরদিন মঙ্গলবার (১২ মার্চ) সকালে আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগে কার্যক্রম শুরুর আগে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের প্রার্থী এবং তাদের সমর্থক আইনজীবীরা দলবেঁধে প্রচার-প্রচারণা চালান।

এফএইচ/এমবিআর/এমকেএইচ