দুদকের সবাইকে সাধু বলার কারণ নেই : অ্যাটির্নি জেনারেল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:০৩ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৯

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সবাই সাধু বলার কোনো কারণ নেই বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) নিজ কার্যালয়ে বেসিক ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারির বিষয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব তিনি এ মন্তব্য করেন।

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, বিভিন্ন ক্ষতির সম্মুখীন হলে ব্যাংক পরিচালনায় যারা থাকেন তারা সবাই দায়ী হতে বাধ্য। তাই সবার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়া উচিত। তিনি বলেন, শুধু দুদক কেন আমি মনে করি এ ব্যাপারে আমাদের আইনশঙ্খলা বাহিনীর যারা আছে; পুলিশ, র‌্যাব, এনবিআর সবার এটা আলাদা তদন্ত করা দরকার। দায়ী কে, কতখানি।

তিনি বলেন, আমিও আমাদের সংসদ সদস্যের (ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস) সঙ্গে একমত হয়ে বলব, অনতিবিলম্বে পদক্ষেপ নেয়া উচিত।

মাহবুবে আলম বলেন, যে ব্যাংকই নানা রকম ক্ষতির সম্মুখীন হবে, ওই ব্যাংকের যে বোর্ড অথবা ডাইরেক্টর যারা থাকবেন তারা দায়ী হবেন। অন্ততপক্ষে তাদের ব্যাখ্যা দিতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, দুদকের মধ্যে যে সবাই সাধু বসে আছে এটা বলার কারণ নেই। কারণ হলো দুদকের যে কর্মচারীরা আছেন, এদের মধ্যে আগের অনেক লোক আছেন। সরকার চেয়েছিল সম্পূর্ণ নতুন লোক দিয়ে এই দুর্নীতি দমন কমিশন গঠিত হবে। তখন নানারকম মামলা মোকদ্দমার কারণে সেটি সম্ভব হয়নি।

বেসিক ব্যাংকের বিষয়ে তিনি বলেন, এ ব্যাংকটি কোনো অলৌকিক কারণে বসে যায়নি। নিশ্চয় মানবগঠিত নানারকম দুর্নীতির জন্য এ ব্যাংকটি বসে গেছে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মাহবুবে আলম বলেন, ‘এটা এককভাবে কাউকে দায়ী করা ঠিক হবে না। তার কারণ এই চেয়ারম্যান আসার পরে অনেকগুলো সিদ্ধান্ত হয়েছে, অনেকগুলো কাজ হয়েছে, আমরা দেখেছি। সবচেয়ে বড় কথা হলো, উনি অভ্যন্তরীণ অনেকগুলো বিষয় সংস্কার করেছেন। উনি ওনার ঘরের ভেতরটাকে সাফ করার জন্য বা এটিকে সুষ্ঠ করার জন্য, একটা সচ্ছতা আনার জন্য চেষ্টা করেছেন। আমার কাছে মনে হয়েছে উনি যথেষ্ঠ কর্মঠ।

কোনো মামলার ক্ষেত্রে সব রকমের তদবির, ফোন অগ্রাহ্য করতে হবে। এই ধরনের দুর্নীতি দমনে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এফএইচ/এসআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]