দুই জেএমবির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শেষে রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২০ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০১৯

রাজধানীর গুলিস্তান পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় নব্য জেএমবির দুই সদস্য মো. মেহেদী হাসান তামিম ও মো. আব্দুল্লাহ আজমির ১৬৪ ধারা জবানবন্দি দিয়েছেন। রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম জিয়াউল রহমানের আদালতে তারা জবানবন্দি দেন। পরে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন আদালত।

অপরদিকে একই ঘটনায় দায়ের করা আরেক মামলায় তাদের দুইজনের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক নিবানা খায়ের জেসি। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত ১৪ অক্টোবর তাদের পাঁচদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

১৩ অক্টোবর রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে তাদের গ্রেফতার করে ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। গ্রেফতারের পর এক সংবাদ সম্মেলনে সিটিটিসি ইউনিটের প্রধান ও অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, গ্রেফতাররা নব্য জেএমবির সামরিক শাখার সদস্য। তাদের প্রধান লক্ষ্য পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নব্য জেএমবির সামরিক শাখার এ দুই সদস্য জানিয়েছে, তারা প্রত্যেকেই খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় থেকেই তারা নিষিদ্ধ সংগঠনের কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত হয়।

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ভোলার একটি দুর্গমচরে সামরিক প্রশিক্ষণ নেয় তারা। ২০১৯ সালের শুরুর দিকে গত সেপ্টেম্বর মাসে নারায়ণগঞ্জ থেকে আটক ফরিদ উদ্দিন রুমির ছোট ভাই রফিকের নেতৃত্বে একটি সামরিক শাখা প্রতিষ্ঠা করা হয়। হামলার লক্ষ্যে তারা ফতুল্লায় রফিকের বাসায় একটি কারখানায় বোমা তৈরি করে আসছিল। তাদের তৈরি বোমা দিয়ে চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল গুলিস্তানে এবং ৩১ আগস্ট মালিবাগে পুলিশের ওপর হামলা করা হয়।

এছাড়া সায়েন্সল্যাব, মালিবাগ, পল্টন ও খামারবাড়ির বোমা হামলায় ব্যবহৃত বোমাও তাদের হাতেই তৈরি ছিল বলে তিনি জানিয়েছেন। মনিরুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারদের অন্য সহযোগীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

জেএ/আরএস/এমএস