লতিফ সিদ্দিকীর জামিন স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৩৩ এএম, ১১ নভেম্বর ২০১৯

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা বগুড়ার এক মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে হাইকোর্টের দেয়া ছয় মাসের জামিন স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এক সপ্তাহের জন্য এই জামিন স্থগিত করা হয়েছে।

সেইসঙ্গে, আগামী ১৭ নভেম্বর বিষয়টি শুনানির জন্য রেখেছেন আদালত। পাশাপাশি দুদককে নিয়মিত লিভ টু আপিল করতে বলেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

আপিল বিভাগের এই আদেশের ফলে কারাগারে থাকা লতিফ সিদ্দিকী আপাতত মুক্তি পাচ্ছেন না বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা।

সোমবার (১১ নভেম্বর) শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ তার জামিন স্থগিত করেন।

আদালতে এদিন দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। লতিফ সিদ্দিকীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) হাইকোর্টের জামিন স্থগিত চেয়ে আপিল আবেদন করেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। আবেদনটি ওই দিন শুনানি নিয়ে আপিল বিভাগের চেম্বারজজ আদালতে শুনানি হয়। সেদিন চেম্বার বিচারপতি আবেদনটি ১১ নভেম্বর (আজ) আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান। এই সময়ের মধ্যে লতিফ সিদ্দিকী যাতে মুক্তি না পান, তা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বলা হয়।

গত ৪ নভেম্বর লতিফ সিদ্দিকীকে ছয় মাসের অন্তর্বর্তী জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে রুলও দেওয়া হয়েছিল। পরে ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করে দুদক।

পাটকলের প্রায় আড়াই একর জমি দরপত্র ছাড়াই বিক্রির মাধ্যমে সরকারের প্রায় ৪০ লাখ ৭০ হাজার টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ এনে ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর রাতে আদমদীঘি থানায় আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীসহ দু’জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন দুদকের বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম।

মামলার অপর আসামি হলেন ওই জমির ক্রেতা বগুড়া শহরের কাটনারপাড়া এলাকার মৃত হারুন-অর-রশিদের স্ত্রী জাহানারা রশিদ।

গত ২০ জুন এ মামলায় বগুড়ার আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদনের পর তা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান আদালত। এরপর তিনি হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করলে তার ছয় মাসের জামিন মঞ্জুর করেন হাইকোর্ট।

এফএইচ/জেডএ/এসএইচএস/পিআর/এমএস