বিএনপির আইনজীবীদের আচরণ ফ্যাসিবাদী : অ্যাটর্নি জেনারেল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০৭ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯

জিয়া চ্যারিটেবল মামলায় খালেদা জিয়ার আপিল শুনানিকে কেন্দ্র করে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের হট্টগোল ও আদালতের কার্যক্রমে ব্যাঘাত ঘটনোকে ‘ফ্যাসিবাদী আচরণ’ বলে মন্তব্য করেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা বলেন।

মাহবুবে আলম বলেন, ‘সকাল ৯টায় আদালত বসেছেন। তাদের (খালেদা জিয়ার) আইটেম আগামী বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) শুনানির জন্য রেখেছেন। তারপর তারা যা করেছেন তা অভাবনীয়, তারা ফ্যাসিবাদী আচরণ করেছেন।’

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘কিছু আইনজীবী আছেন, যারা অপরিচিত, তারা আপিল বিভাগে হট্টগোল ও গণ্ডগোল করেছেন। সবচেয়ে দুঃখজনক ব্যাপার হলো, কিছু সিনিয়র আইনজীবী কোর্টে বসেছিলেন। কিন্তু তারা ব্যাঘাত সৃষ্টিকারী আইনজীবীদের থামানোর চেষ্টা করেননি। তারা জবরদস্তি করে আদালতের ওপর চাপ দিতে চেয়েছেন।’

মাহবুবে আলম অভিযোগ করে বলেন, ‘তারা খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি নিয়ে ব্যস্ত। কিন্তু আপিল শুনানির কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। নানা অজুহাতে এবং এ মামলাকে তারা রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে ফায়দা লোটার চেষ্টা করছেন।’

Mahbububr-2

তিনি আরও বলেন, ‘তারা আবেদন করেছেন। আদালত বিবেচনা করবেন জামিন দেবেন বা দেবেন কি না। কিন্তু আদালতের সামনে গিয়ে এ রকম কাজে ব্যাঘাত ঘটানো ফ্যাসিবাদী কাজ। প্রধান বিচারপতিকে অনুরোধ করবো, যেসব আইনজীবী আপিল বিভাগের এনলিস্টেড, তারা ছাড়া আর কোনো আইনজীবীকে যেন আপিল আদালতে ঢুকতে দেয়া না হয়। যুক্তরাষ্ট্রসহ পৃথিবীর অনেক উন্নত দেশে এমন নিয়ম মেনে চলা হয়।’

এর আগে বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ছয় সদস্যের আপিল বেঞ্চ খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানির দিন আগামী ১২ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) নির্ধারণ করে আদেশ দিতে চান। এ সময় আপিল বিভাগের এজলাস কক্ষে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা হট্টগোল শুরু করলে সকাল ১০টা ৫ মিনিটে বিচারপতিরা এজলাস কক্ষ ত্যাগ করেন।

পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এজলাসে এসে অন্য মামলার শুনানি শুরু করলে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা উচ্চস্বরে স্লোগান দিতে থাকেন। এতে এজলাসে বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। আদালত এটিকে নজিরবিহীন বলে মন্তব্য করেছেন।

এফএইচ/আরএস/পিআর