নাগরিকের ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে : প্রধান বিচারপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:১০ পিএম, ২২ জানুয়ারি ২০২০

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, 'কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। প্রত্যেক নাগরিকের ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী, মৌলিক অধিকার ও স্বাধীনতা নিশ্চিত থাকবে। আইনের শাসন, ন্যায়বিচার, মৌলিক মানবাধিকার, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক সাম্য নিশ্চিত করতে আপনাদের ভূমিকা ছিল অবিচল।'

বুধবার (২২ জানুয়ারি) আইন পেশায় ৫০ বছর পূর্ণ হওয়া সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র ১৭ আইনজীবীকে দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সমিতির শহীদ সফিউর রহমান মিলনায়তনে সমিতির উদ্যোগে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে ১৭ আইনজীবীকে ক্রেস্ট দেয়া হয়। এদের মধ্যে কোনো কোনো আইনজীবী অসুস্থতার জন্য উপস্থিত হতে না পারায় তাদের সন্তানরা ক্রেস্ট গ্রহণ করেন।

সংবর্ধনা পাওয়া আইনজীবীরা হলেন- ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ, অ্যাডভোকেট আবদুর রেজাক খান, অ্যাডভোকেট ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, ব্যারিস্টার শাহেদ আলম, অ্যাডভোকেট এস. এ. রহিম, অ্যাডভোকেট মো. শহীদুল হক, অ্যাডভোকেট এনায়েত হুসেইন খান, ব্যারিস্টার মুহম্মদ জমির উদ্দিন সরকার, অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, অ্যাডভোকেট মো. আবদুল ওয়াদুদ, অ্যাডভোকেট লুৎফে হাবিব খান, অ্যাডভোকেট রেজা আলী, অ্যাডভোকেট সাদেক আলী, অ্যাডভোকেট এ.বি.এম. রফিক উল্লাহ, অ্যাডভোকেট এ.কে. মজিবর রহমান, সিনিয়র অ্যাডভোকেট ব্যারিস্টার রাবিয়া ভূইয়া এবং সিনিয়র অ্যাডভোকেট হাবিবুল ইসলাম ভূঁইয়া।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন তাদের ৫০ বছরের আইন পেশার প্রশংসা করে বলেন, 'বিচার বিভাগও তাদের কাছে ঋণী। বিচার বিভাগের পক্ষ থেকে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় আপনাদের ভূমিকা প্রশংসার দাবিদার।'

তিনি বলেন, 'আইন পেশা একটি অনিশ্চিত পেশা হলেও আপনাদের সততা, যোগ্যতা ও মেধার কারণে আজ আপনারা এই অঙ্গনে প্রতিষ্ঠিত। আপনারা আইন পেশাকে করেছেন সম্মানিত। আপনাদের সাফল্য এই পেশার নতুন প্রজন্মের সামনে অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। আপনাদের পেশাগত সততা অনুসরণ করবেন নবীন আইনজীবীরা।'

এফএইচ/এফআর/পিআর