সোয়া কোটি টাকার ঘড়ি চুরির মামলায় রিমান্ডে তিনজন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:১২ এএম, ২৫ জুন ২০২০

গুলশানের বারিধারার পার্ক রোডে বসবাসকারী ব্যবসায়ী সুমন মিয়ার বাড়ি থেকে একটি আইফোন ও প্রায় ১ কোটি ২৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা মূল্যমানের ৩টি বিদেশি হাত ঘড়ি চুরির ঘটনায় গ্রেফতার তিন আসামির দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। তারা হলেন- মিজান (২০), মো. উজ্জল মিয়া (২৬) ও মো. তাজুল ইসলাম লিটন (২৮)।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত সূত্র থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়। আদালতের সুত্র মতে, বুধবার তাদের তিনজনকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে গুলশান থানা পুলিশ। চুরির ঘটনায় করা মামলার মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য তাদের পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিতে চায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক মাসুম বিল্লাহ রনি। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

চুরির ঘটনার পরপরই ওই বাসার চারদিকের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে তদন্ত শুরু করে গুলশান থানা পুলিশ। বিভিন্ন তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মঙ্গলবার প্রথমে মিজানকে গ্রেফতার করা হয়। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ভাটারা থানার ফাঁসেরটেক বালুর মাঠ এলাকা থেকে উজ্জল ও লিটনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে একটি আইফোন, প্রায় ১ কোটি ২৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা মূল্যমানের ৩টি বিদেশি হাত ঘড়ি ও চোরাই মাল বিক্রি বাবদ নগদ এক লাখ তিন হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। সেই সাথে চোরাই কাজে ব্যবহৃত ১টি গ্রিল কাটার রেঞ্জ উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, গেল ৮ জুন বারিধারার পার্ক রোডের একটি বাসায় চুরি হয়। ব্যবসায়ী সুমন মিয়া একাই থাকতেন ওই বাসায়। দামি ঘড়ি সংগ্রহের শখ ছিল তার। সকালে উঠে দেখেন পাশের রুম থেকে একটি আইফোন, পাঁচটি ঘড়ি চুরি হয়ে গেছে। এ ঘটনায় তিনি গুলশান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন প্রথমে। এরপর ২৩ জুন তিনি গুলশান থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

জেএ/এনএফ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]