শিশুসন্তান হত্যা : বাবার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ৬ আগস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৫ পিএম, ০২ জুলাই ২০২০

যৌতুকের টাকা না পেয়ে তিন বছর সাত মাসের সন্তান মাহিমকে হত্যার ঘটনায় করা মামলায় বাবা জুলহাস ওরফে ফারুক ওরফে গুড্ডা (৩১) ও তার সহযোগী জুয়েল ব্যাপারীর (২০) বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলে ৬ আগস্ট দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) ঢাকা মহানগর হাকিম হাবিবুর রহমান মামলার এজাহার গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য এ দিন ধার্য করেন। এ দিন তারা দুইজনেই হত্যার দায় স্বীকার করে ফৌজদারি কার্যবিধি ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর বিচারক তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত মঙ্গলবার (৩০ জুন) সন্ধ্যায় যাত্রাবাড়ী থানার মাতুয়াইল মৃধাবাড়ি এলাকায় র‌্যাব-১০ এর একটি অভিযানে অপহরণকারী জুয়েল ব্যাপারীকে (২০) আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে ভুক্তভোগী বাবা জুলহাস ওরফে ফারুক ওরফে গুড্ডাকে (৩১) মাতুয়াইল দরবার শরীফ মোড় এলাকা থেকে আটক করে র‌্যাব-১০।

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে প্রায়ই শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতেন জুলহাস। সম্প্রতি বিদেশ যাওয়ার জন্য শ্বশুরবাড়িতে আরও চার লাখ টাকা দাবি করে বসেন তিনি। এ নিয়ে পারিবারিক কলহ চলছিল। মাহিমকে গত শনিবার (২৭ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টায় মাতুয়াইল বাসার সামনে থেকে অপহরণ করেন প্রতিবেশী জুয়েল। এরপর তারা ভুক্তভোগীকে ডেমরার দেইল্লা নির্জন এলাকায় নিয়ে জুসের সঙ্গে আটটি ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে পান করায়। শিশু মাহিমের মৃত্যু নিশ্চিত করে শনিবার সন্ধ্যায় মৃধাবাড়ি সংলগ্ন গ্রিন মডেল টাউন এলাকার কাশবনের ভেতর বালু চাপা দিয়ে রাখেন জুলহাস ও জুয়েল। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর মা স্মৃতি আক্তার বাদী হয়ে যাত্রাবাড়ী থানায় হত্যা মামলা করেন।

জেএ/এএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]