ওয়ারীতে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যা, কারাগারে স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৩ পিএম, ০৩ জুলাই ২০২০

পুরান ঢাকার ওয়ারীতে রেশমা (২০) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ গ্রেফতার স্বামী রবিন হোসেনকে (২৪) কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

শুক্রবার (৩ জুলাই) তিনদিনের রিমান্ড শেষে রবিনকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওয়ারী থানার উপ-পরিদর্শক রনজিত সরকার।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে সোমবার রবিনের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম শাহিনুর রহমান। গত রোববার (২৮ জুন) ওয়ারীর ৫৮ নম্বর গোয়ালঘাট লেনের ষষ্ঠ তলা থেকে ওই গৃহবধূর মরদহে উদ্ধার করে পুলিশ।

ওই ঘটনায় ওয়ারী থানায় ওই গৃহবধূর বাবা মনু হাওয়ালাদার একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তাদের গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার ফুলকচি গ্রামে।

মামলার অভিযোগ রেশমার বাবা উল্লেখ করেন, আড়াই বছর আগে পরিবারকে না জানিয়ে রেশমা ও রবিন বিয়ে করেন। বিয়ের পর তারা ঢাকায় থাকা শুরু করেন। শনিবার (২৭ জুন) দুপুরে তার মেয়ে তাকে ফোন করে জানায়, দাম্পত্য কলহে রবিন তাকে মারধর করেন।

ওইদিন মাঝরাতে ঘরের ভেতরে রবিন তার মেয়ের গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন। হত্যার সময় রেশমা বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করেন। চিৎকার শুনে পাশের বাড়ির বাসিন্দা তাছলিমা (৫০) জানালা দিয়ে দেখার চেষ্টা করেন। তিনি বাড়িওয়ালাসহ আশপাশের লোকজনকে জানালে তারা ওই বাসার দরজায় ধাক্কাতে থাকেন। একপর্যায়ে দরজা খুললে ভেতরে রেশমার মরদেহ সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখা যায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করেন।

জেএ/এমএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]