কক্সবাজার বিমানবন্দরের পাশের ৮৩০ পরিবার উচ্ছেদে হাইকোর্টের ‘না’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৫৯ পিএম, ০৯ আগস্ট ২০২০

কক্সবাজার বিমানবন্দরের পাশে ফদনার ডেইল এলাকায় বসবাসরত ৮৩০ পরিবারকে উচ্ছেদে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন হাইকোর্ট।

এ সংক্রান্ত এক রিটের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি শহিদুল করিমের ভার্চুয়াল বেঞ্চ এই আদেশ দেন। রোববার (৮ আগস্ট) আদেশের বিষয়টি জানিয়েছেন রিটকারী আইনজীবী কেএম সগীর।

তিনি জানান, নিয়মিত আদালত খোলার দুই সপ্তাহ পর্যন্ত উচ্ছেদে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, সদরের সহকারী কমিশনার-ভূমি (এসি ল্যান্ড), এয়ারপোর্ট ম্যানেজার, সিভিল অ্যাভিয়েশন অথরিটি ও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আওসাফুর রহমান বুলু। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

আইনজীবীরা জানান, ১৯৯১ সালের প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে কুতুবদিয়ায় ঘরবাড়ি বিলীন হয়ে গেলে হাজার হাজার মানুষের আশ্রয় জোটে কক্সবাজার বিমানবন্দর লাগোয়া সমুদ্রতীরবর্তী এলাকায়।

সম্প্রতি এসব এলাকায় উচ্ছেদের জন্য তোড়জোড় শুরু হলে গত ৫ আগস্ট হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন কুতুবদিয়া ভূমিহীন সমবায় সমিতি লিমিটেডের সভাপতি মোজাফফর আহমদ সিকদার। ওই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত এই আদেশ দেন।

রিটকারী মোজাফফর আহমদের বরাত দিয়ে আইনজীবী জানান, ১৯৯১ সালে ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়ের পর ঘরবাড়ি হারিয়ে তারা আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান করেন। এরপর সেখান থেকে তাদের উচ্ছেদ করতে গেলে তারা হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আদালত এক আদেশে তাদের পুনর্বাসন না করে উচ্ছেদে নিষেধাজ্ঞা দেন। কিন্তু আর তাদের পুনর্বাসন করা হয়নি। বরং উচ্ছেদের জন্য কয়েক দফা চেষ্টা করা হয়।

পরে তারা আদালত অবমাননার অভিযোগও দায়ের করেন। এর মধ্যে সম্প্রতি নবনির্মিত পুনর্বাসন কেন্দ্রে মাত্র ১২২ পরিবারকে পুনর্বাসনের উদ্যোগ নিয়ে বাকিদের উচ্ছেদের প্রস্তুতি নেয়া হয়। ফলে তাদের পক্ষে আবারও হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। আদালত ওই রিটের শুনানি নিয়ে এবার এ আদেশ দিলেন।

এফএইচ/এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]