ওসিসহ পাঁচ পুলিশের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির সেই মামলা প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৪৯ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে রাজধানীর কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমানসহ পাঁচ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে করা মামলাটি প্রত্যাহার করে নিয়েছেন কাপড় ব্যবসায়ী সোহেল মীর।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। এ দিন মামলার বাদী সোহেল মীর আদালতে হাজির হয়ে মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান নোমান বাদীর আবেদনটি গ্রহণ করে মামলাটি খারিজ করে দেন।

এর আগে গত ১০ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান নোমানের আদালতে মামলাটি করেন সোহেল মীর। আদালত ওইদিন বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে তদন্ত করে ১৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলার অপর আসামিরা ছিলেন- কোতয়ালী থানার উপপরিদর্শক পবিত্র সরকার (৪২), খালিদ শেখ (৪৫), সহকারী উপপরিদর্শক শাহিনুর রহমান (৪২), কনস্টেবল মো. মিজান (৫২) ও সোর্স মোতালেব।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছিল, গত ২ আগস্ট কোতোয়ালি থানা এলাকার ওয়াইজঘাটে কাপড় ব্যবসায়ী সোহেল মীরকে গতিরোধ করেন আসামিরা। এরপর দেহ তল্লাশি করে তার পকেটে থাকা দুই হাজার ৯০০ টাকা নিয়ে যান। টাকা ফেরত চাইলে জেএমবি বানিয়ে ক্রসফায়ারের হুমকি দেন এবং তার পকেটে ২১৪ পিস ইয়াবা দিয়ে থানা হাজতে নিয়ে যান।

আরও বলা হয়েছিল, খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন এলে আসামিরা তাদের কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। দাবি করা চাঁদা না পেলে তাকে জেএমবি ও মাদক মামলায় চালান করে দেবে বলে হুমকি প্রদান করেন। এরপর পরিবার আসামিদের দুই লাখ টাকা প্রদান করেন। পরে বাদীকে নন-এফআইআর মূলে আদালতে চালান করা হয়। হাজত থেকে বাদী বের হওয়ার পর ঘটনা প্রকাশ করলে ক্রসফায়ারের হুমকি দেন আসামিরা।

জেএ/বিএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]