যানবাহনের ফিটনেস পরীক্ষায় আরও ফিটনেস সেন্টার স্থাপনের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:১৪ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

যানবাহনের ফিটনেস পরীক্ষার জন্য দেশজুড়ে আরও ফিটনেস সেন্টার স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী দুই মাসের মধ্যে ফিটনেস সেন্টার স্থাপনের জন্য বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষসহ (বিআরটিএ) সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আদেশের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন রিটকারী আইনজীবী তানভীর আহমেদ।

গাড়ি ফিটনেস পরীক্ষা ও নবায়ন সংক্রান্ত বিআরটিএ’র বাস্তবায়ন প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করার পর তা দেখে বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ বিআরটিএ’র প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন আইনজীবী রাফিউল ইসলাম। রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী তানভীর আহমেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নূর-উস সাদিক।

আইনজীবীরা জানান, ম্যানুয়াল পদ্ধতির পরিবর্তে স্বয়ংক্রিয়ভাবে গাড়ির ফিটনেস পরীক্ষা করে সার্টিফিকেট দিতে ‘মোটরযান পরিদর্শন কেন্দ্র (ভিআইসি)’ স্থাপনের অগ্রগতি জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। বিআরটিএ’কে আগামী দুই মাসের মধ্যে তা জানাতে বলা হয়েছে।

বিআরটিএ’র আইনজীবী রাফিউল ইসলাম বলেন, ভেহিকেল ইন্সপেকশন সেন্টার (ভিআইসি) বা মোটরযান পরিদর্শন কেন্দ্র স্থাপনের জন্য কী পদক্ষেপ বিআরটিএ গ্রহণ করেছে তার অগ্রগতি জানাতে বলেছেন হাইকোর্ট। যেহেতু এটা টেন্ডারের বিষয় তাই বিআরটিএর পক্ষ থেকে দুই মাস সময় চাওয়া হয়েছিল। আদালত তা মঞ্জুর করেছেন। দুই মাস পর বিষয়টি আবার আদেশের জন্য আসবে।

বিআরটিএ ২০১৯ সালের ১ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত একটা সার্কুলার জারি করে। সে সার্কুলার অনুযায়ী একটা গাড়ির রেজিস্ট্রেশন যেখানেই থাকুক না কেন, ফিটনেস নবায়ন যেকোনো জায়গায় বিআরটিএ কার্যালয় থেকে নিতে পারবে।

রাফিউল ইসলাম বলেন, এর আগে চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি প্রাইভেট গাড়ির ক্ষেত্রে ফিটনেসের মেয়াদও দুই বছর বাড়িয়ে আরেকটি সার্কুলার জারি করেছিল। এগুলোর বাস্তবায়ন প্রতিবেদন আজ আদালতে দাখিল করেছি এবং বলেছি, এই রিটে জারি করা প্রত্যেকটা রুল বাস্তবায়ন পর্যায়ে রয়েছে। এ ছাড়াও আরও বেশ কিছু বাস্তবায়ন হয়েছে।

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে যানবাহনের অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক ফিটনেস জরিপে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ২০১৮ সালের ৯ জুলাই বিআরটিএ’র চেয়ারম্যানকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তানভীর আহমেদ।

নোটিশে যানবাহনের অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক ফিটনেস জরিপে কী কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা জানাতে বলা হয়। এই নোটিশের জবাব না পেয়ে ওই বছরের ২৬ জুলাই রিট আবেদন করা হয়।

এ রিট আবেদনে হাইকোর্ট ওই বছরের ৩১ জুলাই এক আদেশে সারাদেশে ফিটনেসবিহীন পরিবহন শনাক্ত করার জন্য কমপক্ষে ১৫ সদস্যের একটি জাতীয় নিরপেক্ষ বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করতে সরকারের সংশ্লিষ্টদেরকে নির্দেশ দেন। এরপর ওই বছরের ২৩ অক্টোবর ১৬ সদস্যের কমিটি গঠন করে বিআরটিএ আদালতকে জানায়। এরই ধারাবাহিকতায় বিআরটিএ আদালতে বিভিন্ন সময়ে একাধিকবার প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এফএইচ/এসআর/এফআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]