রায়ে সন্তুষ্ট জাহালম, দ্রুত সময়ে টাকা পাওয়ার প্রত্যাশা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২০ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় বিনা অপরাধে তিন বছর জেল খাটা জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এমন রায়ে হাইকোর্টের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন জাহালম।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় জাহালম বলেন, ‘রায়ে আমি সন্তুষ্ট। হাইকোর্টের দেয়া রায়ের পর ক্ষতিপূরণের টাকা যেন দ্রুত সময়ের মধ্যে হাতে পাই- এটাই আমার প্রত্যাশা।’ রায় ঘোষণার পর সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে দাঁড়িয়ে গণমাধ্যমের সামনে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে তার ভাই শাহানুরও উপস্থিত ছিলেন।

জাহালম গ্রেফতার হন ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি। এরপর ৩৩ মামলায় ‘ভুল’ আসামি জেলে প্রতিবেদন প্রকাশ পায় ২০১৯ সালের ২৮ জানুয়ারি। হাইকোর্ট জাহালমকে মুক্তির নির্দেশ দেন ২০১৯ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি। ২০১৯ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি এক হাজার ৯২ দিন কারাবাসের পর জাহালমের মুক্তি মেলে। প্রায় দেড় বছর পর ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশনা দিয়ে রায় ঘোষণা হলো। জাহালমসহ বিভিন্ন ঘটনায় গণমাধ্যমের ভূমিকা প্রশংসনীয় বলেও উল্লেখ করেন আদালত।

হাইকোর্ট রায়ে বলেছেন, ‘জাহালমের মতো আর কোনো নিরীহ লোক যেন ভবিষ্যতে দুদকের মামলায় জেল না খাটে। দুদককে যথাযথভাবে তদন্ত করারও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ (ভার্চুয়াল) এ রায় দেন। গণমাধ্যমকে এমন তথ্য নিশ্চিত করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বি এম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

তিনি বলেন, ‘সোনালী ব্যাংকের ১৮ কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনার মামলায় প্রধান আসামি আবু সালেকের পরিবর্তে নিরীহ জাহালমকে চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে ব্র্যাক ব্যাংকের দুজন কর্মকর্তা অন্যতম ভূমিকা রেখেছেন বলে হাইকোর্ট রায় উল্লেখ করেছেন। রায় প্রকাশের ৩০ দিনের মধ্যেই জাহালমকে এই ক্ষতিপূরণের টাকা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে দুদকের মামলা তদন্ত প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত ১২ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।’

আদালতে জাহালমের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সুভাষ চন্দ্র দাস ও শাহিনুর রহমান। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সাইফুল আলম।

আবু সালেকের বিরুদ্ধে সোনালী ব্যাংকের প্রায় সাড়ে ১৮ কোটি টাকা জালিয়াতির ২৬টি মামলা হয়। কিন্তু আবু সালেকের বদলে জেলে নেয়া হয় জাহালমকে। যিনি পেশায় পাটকল শ্রমিক। যে ঘটনার তদন্ত করে দুদক জানায়, জাহালম নিরপরাধ। একই মত দেয় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনও।

এফএইচ/এফআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]