ডিপিডিসির তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর বরখাস্ত চেয়ে নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:১৩ পিএম, ২৯ নভেম্বর ২০২০

চাকরি চলাকালীন অবস্থায় কানাডার নাগরিকত্ব নেয়ায় ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. মাহবুবুর রহমানকে চাকরি থেকে বরখাস্তে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে সরকারের সংশ্লিষ্টদের কাছে লিগ্যাল (আইনি) নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানার আজরাফ বিন আকরামের পক্ষে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব এবং ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাউছার নোটিশটি পাঠান। জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব।

রোববার (২৯ নভেম্বর) বিশেষ লোক মারফতে এবং ইমেইলের মাধ্যমে পাওয়ার ডিভিশনের তত্ত্বাবধায়ক ইঞ্জিনিয়ার মো. হাবিবুর রহমান, ডিপিডিসির বোর্ড অফ ডিরেক্টরস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার বিকাশ দেওয়ান, ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার এ টি এম হারুন-অর-রশিদ, ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক মো. আসাদুজ্জামানকে এই নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

আগামী ৩ দিনের মধ্যে সরকারি চাকরি আইন অনুযায়ী মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে নোটিশে। অন্যথায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানানো হয়।

নোটিশে বলা হয়, মো. মাহবুবুর রহমান বর্তমানে ডিপিডিসির তত্ত্বাবধায়ক ইঞ্জিনিয়ার এবং চুক্তি ও ক্রয়-সংক্রান্ত সার্কেলের দায়িত্ব পালন করছেন। চাকরি চলাকালীন অবস্থায় তিনি কানাডার নাগরিকত্ব অর্জন করেছেন।

সেখানে বলা হয়েছে, যেহেতু ডিপিডিসি একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান এবং চাকরিটি সরকারি সেহেতু একজন সরকারি চাকরিজীবী কোনোভাবেই অন্য কোনো দেশের নাগরিকত্ব অর্জন করতে পারেন না। তিনি যদি অন্য কোনো দেশের নাগরিকত্ব অর্জন করেন তাহলে চাকরি থেকে বরখাস্ত হবেন।

নোটিশে সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ সালের ধারা ৪০ অনুযায়ী অন্য কোনো দেশের নাগরিকত্ব অর্জন করার সঙ্গে সঙ্গেই যেকোনো সরকারি চাকরিজীবী চাকরি থেকে অব্যাহতি পাওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু মো. মাহবুবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে কানাডিয়ান নাগরিকত্ব গ্রহণ করার পরও সরকারি চাকরিতে বহাল রয়েছেন যা বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ পেয়েছে।

উক্ত বিষয়টি নজরে আসায় গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানার আজরাফ বিন আকরাম তার আইনজীবীর মাধ্যমে বিশেষ লোক মারফত এবং ইমেইলের মাধ্যমে নোটিশটি পাঠানো হয়েছে। ৩ দিনের মধ্যে সরকারি চাকরি আইন অনুযায়ী মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বলা হয়েছে। অন্যথায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

এফএইচ/এফআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]